Advertisements

কক্সবাজারের উখিয়ার রত্নাপালং গ্রামে রোকন বড়ুয়া নামে এক কুয়েতপ্রবাসীর বাড়িতে ঢুকে দুর্বৃত্তরা তাঁর মা-স্ত্রীসহ চারজনকে গলা কেটে হত্যা করেছে। গতকাল বুধবার গভীর রাতে এই হত্যাকাণ্ড ঘটেছে বলে সন্দেহ করছে পুলিশ। রোকন বড়ুয়ার বাড়ির আশপাশে শতাধিক বড়ুয়া পরিবারের বসতি অবস্থিত।

এ ঘটনায় নিহত ব্যক্তিরা হলেন রোকন বড়ুয়ার মা সখী বড়ুয়া (৫০), স্ত্রী নিলা বড়ুয়া (২৫), ছেলে রবীন বড়ুয়া (৪) ও দেড় বছর বয়সী ছেলে সনি বড়ুয়া। পুলিশ আজ বৃহস্পতিবার সকালে ঘটনাস্থলে গিয়ে হত্যাকাণ্ডের রহস্য উদঘাটনের চেষ্টা চালাচ্ছে।

খবর পেয়ে আজ সকালে কক্সবাজার শহর থেকে ৩৫ কিলোমিটার দূরে ঘটনাস্থলে গেছেন জেলার পুলিশ সুপার (এসপি) এ বি এম মাসুদ হোসেন। আরও গেছেন উখিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) নিকারুজ্জামান চৌধুরী, রামুর ঐতিহাসিক রানকোট বৌদ্ধবিহারের ভিক্ষু জ্যোতিসেন মহাথেরসহ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে ঘটনাস্থল থেকে এসপি এ বি এম মাসুদ হোসেন  বলেন, ‘একটা পরিবারের চারজন সদস্যকে গলা কেটে হত্যা করা হলো—অথচ আশপাশের কোনো লোকজন ঘটনা টের পেল না, তা নিয়ে সন্দেহ আছে। টাকাপয়সার লোভে যদি কেউ ঘরে ঢোকে, তাহলে দুই শিশুকে হত্যা করবে কেন? এই হত্যাকাণ্ডের পেছনে পরিচিত লোকজনের সংশ্লিষ্টতা থাকতে পারে, পুলিশ এই রহস্য উদঘাটনের চেষ্টা চালাচ্ছে।’

By Abraham

Translate »