আন্তর্জাতিক

সামরিক বাহিনীতে যোগ দিতে পারবেন সৌদি নারীরা

Advertisements

সৌদি আরবের নারীদের সামরিক বাহিনীতে যোগ দেয়ার অনুমতি দিয়েছে দেশটির প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়। সৌদি যুবরাজ মুহাম্মাদ বিন সালমান সৌদি ভিশন ২০৩০ বাস্তবায়নের অংশ হিসেবে নারীর ক্ষমতায়ন করতে চান। তারই আলোকে সৌদি নারীদেরকে সামরিক বাহিনীতে যোগ দেয়ার এই অনুমতি দেয়া হলো।

সৌদি মালিকানাধীন পত্রিকা আশ-শারকুল আওসাত গত বৃহস্পতিবার এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, সৌদি নারীরা এখন থেকে দেশের সামরিক বাহিনীর বিভিন্ন শাখায় সিপাহী থেকে শীর্ষ পর্যায়ের কর্মকর্তা হিসেবে সামরিক কাজ করতে পারবেন।

গত বছর সৌদি সরকার প্রথমবারের মতো দেশটির নারীদেরকে নিরাপত্তা বাহিনীর মাদক-বিরোধী দপ্তর, অপরাধ তদন্ত এবং কারা ব্যবস্থাপনার মতো জননিরাপত্তা শাখায় কাজের সুযোগ দিয়েছে। এক বছর আগে যেখানে সৌদি আরবে পুরুষ সঙ্গী ছাড়া নারীদের ভ্রমণ নিষিদ্ধ ছিল এমনকি গাড়ি চালানোর অনুমতি ছিল না সেই দেশে এখন নারীদেরকে সামরিক শাখায় কাজের সুযোগ দেয়া হচ্ছে।

সাংবাদিক জামাল খাশোগিকে হত্যার জন্য সৌদি যুবরাজকেই দায়ী করা হয়

সৌদি যুবরাজ বিন সালমান ক্ষমতায় আসার পর ইয়েমেনে আগ্রাসন এবং সাংবাদিক জামাল খাশোগি হত্যাসহ নানা কর্মকাণ্ডে উগ্রতার পরিচয় দেয়ার পর তিনি নিজেকে উদারমনা হিসেবে তুলে ধরার চেষ্টা করছেন। ২০৩০ ভিশন বাস্তবায়ন করার জন্য তিনি সৌদি আরবকে আরো অনেক বেশি কথিত উদারপন্থী রাষ্ট্র হিসেবে তুলে ধরতে চান।

অন্যদিকে, এমন সময় সৌদি সরকার নারীদেরকে সামরিক বাহিনীতে যোগ দেয়ার অনুমতি দিল যখন খুব সম্প্রতি সৌদি বহিনী ও তাদের ভাড়াটে সন্ত্রাসিরা ইয়েমেনে মারাত্মক বিপর্যয়ের মুখে পড়েছে।