জাতীয়

‘আবরারের লাশ পুঁজি করে অ্যাজেন্ডা বাস্তবায়ন করা যাবে না’

Advertisements

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ আমাদের ভাই। তার মরদেহকে পুঁজি করে বহিরাগত কেউ নিজস্ব এজেন্ডা বাস্তবায়ন করবেন না।

শুক্রবার (১০ অক্টোবর) সকাল সোয়া ১১টায় বুয়েট শহীদ মিনার চত্বরে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে মাহমুদুর রহমান সায়েম সবার উদ্দেশে এ অনুরোধ জানান।

তিনি বলেন, উপাচার্য স্যারের সঙ্গে আলোচনার সময় শুধু বর্তমান ছাত্রদের পরিচয়পত্র দেখে অডিটোরিয়ামে প্রবেশ করার অনুমতি দেওয়া হবে। কথা বলার সময়, টেলিভিশন চ্যানেল, দৈনিক পত্রিকা ও বহুল প্রচারিত অনলাইন পোর্টালের সাংবাদিকরা প্রবেশ করতে পারবেন। কোনো অপ্রচলিত ও ব্যক্তিগত মিডিয়াসহ অন্য কাউকে প্রবেশ করার অনুমতি দেওয়া হবে না। একটি মিডিয়া থেকে সর্বোচ্চ দুইজন প্রবেশ করতে পারবেন।

গণমাধ্যমকর্মীদের উদ্দেশে সায়েম বলেন, উপাচার্য স্যারের সঙ্গে আলোচনার সময় মিডিয়ার কেউ কোনো প্রশ্ন করতে পারবেন না। কোনো টেলিভিশন চ্যানেল লাইভ টেলিকাস্ট করতে পারবে না। তবে, আলোচনা শেষে প্রচারের জন্য ছবি ও প্রয়োজনীয় ভিডিও নিতে পারবেন।

উপাচার্যকে দেওয়া আল্টিমেটামের বিষয়ে তিনি বলেন, যেহেতু উপাচার্য স্যার আমাদের সঙ্গে বিকেল ৫টার সময় কথা বলার জন্য রাজি হয়েছেন। তাই, স্যারের সঙ্গে আলোচনা শেষ না হওয়া পর্যন্ত আমাদের আল্টিমেটামের সময় বৃদ্ধি করা হয়েছে।

এসময় আন্দোলন কর্মসূচি প্রসঙ্গে বলা হয়, শুক্রবার আমরা মিছিলসহ ক্যাম্পাস প্রদক্ষিণ করবো। এরপর প্রতিদিনের মতো বুয়েট সংলগ্ন শহীদ মিনার চত্বর সড়কে অবস্থান কর্মসূচি পালন করবো। এরপর সেখানে একটি পথনাটকের প্রদর্শন হবে। সেই সঙ্গে ক্যাম্পাসে গ্রাফিতি কর্মসূচি পালন করা হবে। জুমার নামাজের পরে বুয়েট ডিবেটিং ক্লাবের আয়োজনে একটি প্রতীকী কর্মসূচি পালন করা হবে। এরপর সবাই একসঙ্গে অডিটোরিয়াম কমপ্লেক্সে উপাচার্য স্যারের সঙ্গে আলোচনায় যাবো।