আইন-আদালত

ড. ইউনূসের বিরুদ্ধে পরোয়ানা হাইকোর্টে স্থগিত

Advertisements

বেসরকারি প্রতিষ্ঠান গ্রামীণ কমিউনিকেশন্সের তিন শ্রমিককে চাকরিচ্যুতির ঘটনায় করা তিন মামলায় নোবেল বিজয়ী অধ্যাপক ও গ্রামীণ ব্যাংকের সাবেক চেয়ারম্যান ড. মুহাম্মদ ইউনূসের বিরুদ্ধে শ্রম আদালতে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারির আদেশ স্থগিত করেছেন হাইকোর্ট। পাশাপাশি মামলা তিনটির কার্যক্রমও স্থগিত করা হয়েছে।

বিচারপতি মোহাম্মাদ আব্দুল হাফিজ ও বিচারপতি আহমেদ সোহেলের হাইকোর্ট বেঞ্চ সোমবার এ আদেশ দেন। আদালতে ড. ইউনূসের পক্ষে করা আবেদনের ওপর শুনানি করেন জ্যেষ্ঠ আইনজীবী ব্যারিস্টার রোকনউদ্দিন মাহমুদ।

মামলার বিবরণে জানা যায়, ড. মুহাম্মদ ইউনূস প্রতিষ্ঠিত গ্রামীণ কমিউনিকেশন্সে কয়েকজন শ্রমিকের ট্রেড ইউনিয়ন করার উদ্যোগে বাধা দিয়ে তিনজন শ্রমিককে চাকরিচ্যুত করা হয়। পরে এ ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্ত তিন শ্রমিক ড. ইউনূসসহ প্রতিষ্ঠানটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক নাজনীন সুলতানা ও উপ-মহাব্যবস্থাপক খন্দকার আবু আবেদীনকে বিবাদী করে শ্রম আদালতে মামলা করেন।

মামলার বাদীরা হলেন- চাকরিচ্যুত তিন শ্রমিক প্রস্তাবিত গ্রামীণ কমিউনিকেশন্স শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সালাম, প্রচার সম্পাদক শাহ আলম ও সদস্য এমরানুল হক।

গত ৩ সেপ্টেম্বর ড. ইউনূসহ এ মামলার তিন আসামির বিরুদ্ধে সমন নোটিশ জারি করেন শ্রম আদালত। আসামিদের আদালতে উপস্থিতির ধার্য দিন গত ৯ অক্টোবর ড. ইউনূস অনুপস্থিত ছিলেন। বিদেশে অবস্থানরত তার পক্ষে আদালতে কোনো ওকালতনামাও দাখিল করা হয়নি। পরে ঢাকার তৃতীয় শ্রম আদালতের চেয়ারম্যান রহিবুল ইসলাম তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানার আদেশ দেন।

সোমবার ড. ইউনূস তার বিরুদ্ধে তিন মামলা বাতিল ও শ্রম আদালতের গ্রেফতারি পরোয়ানার আদেশ স্থগিত চেয়ে আবেদন করেন।