Advertisements

চলতি বছরের ২৮ ফেব্রুয়ারি কাশ্মীরে নিজস্ব হেলিকপ্টারকে মিসাইলে গুঁড়িয়ে দেওয়ার ঘটনায় বড়সড় সিদ্ধান্ত গ্রহণ করল ভারতীয় সেনাবাহিনী৷ হেলিকপ্টার ধ্বংস করার সঙ্গে যুক্ত দুই সেনা কর্মকর্তার বিরুদ্ধে কোর্ট মার্শাল করা হবে৷ পাশাপাশি অন্য চারজনের বিরুদ্ধে প্রশাসনিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে ভারতীয় সেনাবাহিনী সূত্রে জানিয়েছে৷খবর কলকাতা টাইমস এর।

ভারতীয় বিমানবাহিনী সীমান্ত পার করে বালাকোট এয়ারস্ট্রাইকের ঘটনার পর পাকিস্তান জবাব দেওয়ার জন্য প্রস্তুতি নেয়৷ ২৭ ফেব্রুয়ারি পাকিস্তান বিমান হামলা চালায় কাশ্মীরে৷ বাধা দিতে গেলে ভারত-পাকিস্তান বিমান বাহিনী সংঘাতে জড়িয়ে পড়ে৷ কাশ্মীর উপত্যকার বদগ্রামে এম আই-১৭ হেলিকপ্টারকে মিশাইল ছুড়ে নামানো হয়৷ এই ঘটনায় ভারতীয় বিমান বাহিনীর ছ’জন এবং একজন সাধারণ মানুষের মৃত্যু হয়৷
এই ঘটনার জন্য ভারতীয় বিমানবাহিনীর এয়ার কমান্ডার স্তরের অফিসারকে তদন্তের ভার দেয়া হয়৷ পাঁচ মাস পর তদন্ত রিপোর্ট সোমবার পেশ করা হয়েছে৷ তদন্ত দেরি হওয়ার কারণ হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে, হেলিকপ্টারের ব্ল্যাক বক্স চুরি হয়ে যাওয়া৷ হেলিকপ্টারটি ধ্বংস হওয়ার পর ভারতের জম্মু-কাশ্মীরের বদগ্রামের বাসিন্দারা ব্ল্যাক বক্সটি চুরি করেছিল৷ এছাড়া বিমানবাহিনীর তদন্ত দল ঘটনাস্থলে গেলে, তাদের গাড়ি লক্ষ্য করে পাথর ছোড়া হয়৷

ভারতীয় বিমানবাহিনীর প্রধান ৪ অক্টোবর এক সাংবাদিক সন্মেলনে এই ঘটনাকে ‘বড় ভুল’ বলে অ্যাখ্যা দেন৷ তিনি বলেন, এই ঘটনায় কোর্ট অব ইনকোয়ারি’র নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল৷ যার তদন্ত শেষ হয়েছে৷ জানা গেছে, হেলিকপ্টারটিতে বিমান বাহিনীর নিজস্ব ক্ষেপণাস্ত্র থেকে আঘাত করা হয়েছিল৷এ ঘটনায় প্রশাসনিক ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে৷ দুই কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

By Abraham

Translate »