বিনোদন

খুলনার গৃহিণী দীপ্তি গান গেয়ে জিতলেন ২০ লাখ টাকা

Advertisements

গানের প্রতি ছিল প্রবল ভালোবাসা। কিন্তু বিয়ের পর অন্য ৮-১০ জন নারীর মতো খুলনার গৃহিণী দীপ্তি সরকার এ ভালোবাসাকে বেঁধে ফেলেন সংসারের আঁচলে। তবে থেমে যাননি। সুরেলা কণ্ঠ ছিল তাঁর। উৎসাহ আর সমর্থন পেয়ে তিনি হয়ে উঠলেন সুরের পাখি। তাঁকে সেই মঞ্চটা তৈরি করে দিল ‘সিলন সুপার সিঙ্গার’। গৃহিণী থেকে তিনি এখন গানের তারকা। গৃহিণীদের নিয়ে সংগীত প্রতিযোগিতার অনুষ্ঠান সিলন সুপার সিঙ্গারে বিজয়ী হলেন তিনি। জিতলেন ২০ লাখ টাকার পুরস্কার।

বাংলাদেশের আনাচকানাচে ছড়িয়ে থাকা প্রতিভাময়ী গৃহিণী সংগীতশিল্পী খুঁজে বের করার প্রয়াসে আয়োজন করা হয় ‘সিলন সুপার সিঙ্গার’। সারা দেশ থেকে ১৫ হাজারের বেশি প্রতিযোগীর অংশগ্রহণে সাত মাস আগে যাত্রাটা শুরু হয়েছিল। গতকাল শুক্রবার ১৮ অক্টোবর এনটিভিতে প্রচারিত হয়েছে এর জমকালো গ্র্যান্ড ফিনালে।

প্রথম রানারআপ সুমনা রহমানের হাতে এসেছে ১০ লাখ টাকা। যৌথভাবে দ্বিতীয় রানারআপ ফাহমিদা নাসরিন প্রীতি ও শায়নি শিঞ্জন পেয়েছেন ৬ লাখ টাকা। প্রিয়াঙ্কা দাশসহ সেরা ১১তে জায়গা করে নেওয়া বাকি সাতজনকে ১ লাখ টাকা করে দেওয়া হয়েছে।

সব ছাপিয়ে আগ্রহের কেন্দ্রে ছিলেন দীপ্তি সরকার। দীর্ঘ প্রতিযোগিতা শেষে সর্বশেষ সেরা পাঁচ প্রতিযোগী গৃহিণীদের নিয়ে আয়োজিত এই রিয়েলিটি শোর গ্র্যান্ড ফিনালেতে বিজয়ীর নাম ঘোষণার পর থেকে যেন ভাষা হারিয়ে ফেললেন দীপ্তি। তাঁর চোখে আনন্দের অশ্রু ঝরছিল। আপ্লুত হয়ে বললেন ‘নিজেকে যেন নতুনভাবে আবিষ্কার করেছি এই আয়োজনে। আমার সাধারণ গৃহিণীর পরিচয়টা বদলে দিল সিলন সুপার সিঙ্গার। আর কখনো গান ছাড়ব না। গান নিয়েই এগিয়ে যাব।’

চূড়ান্ত প্রতিযোগিতায় পাঁচ প্রতিযোগীই গেয়েছেন। এদিন অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন কিংবদন্তি রুনা লায়লা। তিনি দুটি গান পরিবেশনের পাশাপাশি সেরা পাঁচের গান শোনার পর নিজের মুগ্ধতার কথা বলেন।