আন্তর্জাতিক

দাবানল নিয়ন্ত্রণে বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন হচ্ছেন ২০ লাখ মানুষ

Advertisements

যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়া অঙ্গরাজ্যে দ্রুত ছড়িয়ে পড়া দাবানল নিয়ন্ত্রণে আনতে না পারায় বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেওয়া হয়েছে। এতে বিশ লাখেরও বেশি মানুষের বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন হওয়ার আশংকা তৈরি হয়েছে। অগ্নিকাণ্ডের আশংকায় ঘর ছাড়তে হয়েছে উত্তর ক্যালিফোর্নিয়ার প্রায় ৯০ হাজার মানুষকে।

রোববার (২৭ অক্টোবর) আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম এ তথ্য জানায়।

অঙ্গরাজ্যেটির ইতিহাসে একসঙ্গে এত মানুষের বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন হওয়ার ঘটনা এটিই প্রথম।

প্যাসিফিক গ্যাস অ্যান্ড ইলেকট্রিক (পিজিঅ্যান্ডই) সতর্কতামূলক এই বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্নতার ঘোষণা দিয়েছে।

এর আগে শনিবার (২৬ অক্টোবর) সন্ধ্যায় এক সংবাদ সম্মেলনে পিজিঅ্যান্ডই’র এক কর্মকর্তা জানান, বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন করার কারণে ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে ৯ লাখ ৪০ হাজার বসতবাড়িসহ উত্তর ক্যালিফোর্নিয়ার ৩৬টি কাউন্টির ব্যবসা প্রতিষ্ঠান।

সোমবার (২৮ অক্টোবর) পর্যন্ত বিদ্যুৎ সুবিধা বন্ধ থাকার কথা।

ওই কর্মকর্তা বলেন, ‘মানুষের নিরাপত্তার কথা ভেবে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।’

সংবাদ সম্মলনে বলা হয়, আবহাওয়া পূর্বাভাস অনুযায়ী, বাতাসের তীব্র প্রবাহ অব্যাহত থাকবে। এসময় বিদ্যুৎ সংযোগ থাকলে নতুন করে আগুনের সূত্রপাত হতে পারে। ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে বিদ্যুৎ সুবিধা।

ক্যালিফোর্নিয়ার গভর্নর গ্যাভিন নিউসম বলেন, এই বিদ্যুৎ বিভ্রাট ‘অগ্রহণযোগ্য।’

এদিকে, সোনোমা কাউন্টির কিনক্যাড দাবানলে এখন পর্যন্ত পুড়ে গেছে ২৫ হাজার ৪৫৫ একর (১০ হাজার ৩শ’ হেক্টর) জমি।

এদিকে পরিস্থিতি সামাল দিতে লস অ্যাঞ্জেলেস ও সোনোমা কাউন্টিতে জরুরি অবস্থা ঘোষণা করা হয়েছে। হাজার হাজার দমকলকর্মী আগুন নেভাতে নিরলস চেষ্টা করছেন।

আবহাওয়া পূর্বাভাসে বলা হয়েছিল, শনিবার রাত থেকে বাতাসের গতিবেগ থাকবে ঘণ্টায় ৮৫ মাইল। বাতাসের কারণে দাবানল দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে এবং আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা যাচ্ছে না।

দ্য ন্যাশনাল ওয়েদার সার্ভিস কিনক্যাড দাবানল ছড়িয়ে পড়া অঞ্চলগুলোতে ‘রেড ফ্ল্যাগ’ সতর্কবার্তা জারি করেছে।

স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, আগুন দ্রুত ছড়িয়ে পড়তে থাকায় তাড়াহুড়ো করে ঘর ছাড়তে বাধ্য হয়েছেন তারা। সঙ্গে নিতে পারেননি প্রয়োজনীয় কোনো জিনিসপত্রও।