Advertisements

ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের বিরুদ্ধে জাতীয় জরুরি অবস্থার মেয়াদ আরো এক বছর বাড়িয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। ১৯৭৯ সালের নভেম্বর মাসে ইরানের বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্ররা তেহরানে মার্কিন দূতাবাস দখল করার ১০ দিন পর তৎকালীন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জিমি কার্টার ১৪ নভেম্বর নির্বাহী আদেশে ইরানের বিরুদ্ধে জাতীয় জরুরি অবস্থা ঘোষণা করেন।

আজ (বুধবার) হোয়াইট হাউজ থেকে প্রকাশ করা এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ১৯৭৯ সালের নভেম্বর মাসে জারি করা ১২১৭০ নম্বর নির্বাহী আদেশের মেয়াদ আরো এক বছর বাড়ানো হলো। এ আদেশে ইরানকে আমেরিকার জাতীয় নিরাপত্তা, পররাষ্ট্রনীতি এবং অর্থনীতির জন্য অসাধারণ হুমকি বলে আখ্যায়িত করা হয়।

হোয়াইট হাউজ থেকে জারি করা বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ইরানের সঙ্গে আমেরিকার সম্পর্ক এখনো স্বাভাবিক হয় নি। সে কারণে ১৯৭৯ সালের ১৪ নভেম্বর ইরানের বিরুদ্ধে যে পদক্ষেপ নেয়া হয়েছিল তা ২০১৯ সালের ১৪ নভেম্বরর পরেও অব্যাহত থাকবে।

তৎকালীন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জিমি কার্টার

রাষ্ট্রীয় জরুরি অবস্থা মার্কিন প্রেসিডেন্টকে নজিরবিহীনভাবে ক্ষমতা প্রদান করে যার আওতায় প্রেসিডেন্ট সম্পদ জব্দ, ন্যাশনাল গার্ড তলব এবং সামরিক কর্মকর্তাদের বহিষ্কার করার ক্ষমতা লাভ করেন। রাষ্ট্রীয় জরুরি অবস্থার ভিত্তিতেই আমেরিকা অন্য দেশগুলোর বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা আরোপের মতো পদক্ষেপ নিয়ে থাকেন।

ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের বিরুদ্ধে আমেরিকা যে রাষ্ট্রীয় জরুরি অবস্থা ঘোষণা করে রেখেছে তা অন্যতম পুরনো পদক্ষেপ যা প্রতিবছর নবায়ন করা হচ্ছে।

By Abraham

Translate »