Advertisements

দুর্নীতি মামলার সাজায় কারাবন্দি খালেদা জিয়ার অবস্থা নিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বক্তব্যের সমালোচনা করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) কর্তৃপক্ষ সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের নির্দেশনা অনুযায়ী নির্ধারিত তারিখে খালেদা জিয়ার মেডিকেল প্রতিবেদন জমা না দিয়ে ‘আদালত অবমাননা’ করেছে বলেও অভিযোগ করেছেন তিনি।

শুক্রবার দুপুরে এক আলোচনা সভায় বিএনপি মহাসচিব বলেন, “আপনারা লক্ষ্য করবেন, বৃহস্পতিবারের আগের দিন প্রধানমন্ত্রী বললেন ওই মামলাকে কেন্দ্র করে যে, তিনি (খালেদা জিয়া) খুব ভালো আছেন, সুস্থ আছেন, হুইল চেয়ারে আছেন, সেটাও ভালোভাবে আছেন, ভালোভাবেই আছেন।

“কথাটা হচ্ছে- চিফ এক্সিকিউটিভ অব দি গভার্নমেন্ট, প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা, তিনি যখন বলেন যে সব ঠিক আছে, কোনো অসুবিধা নাই, তিনি সুস্থ আছেন… তখন বিএসএমএমইউর ভাইস চ্যান্সেলর বা ডাক্তারদের ঘাড়ে কয়টা মাথা যে তারা বলবেন- ‘তিনি খারাপ আছেন’।”

জিয়া দাতব্য ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় খালেদা জিয়ার জামিন আবেদনের বিষয়ে সিদ্ধান্ত দেওয়ার আগে তার স্বাস্থ্যের সর্বশেষ পরিস্থিতি জানতে চেয়েছিল আপিল বিভাগ। ৫ ডিসেম্বরের মধ্যে বিএসএমএমইউ কর্তৃপক্ষকে মেডিকেল প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছিল।

কিন্তু সেই প্রতিবেদন না আসায় বৃহস্পতিবার জামিন শুনানি এক সপ্তাহ পিছিয়ে দেয় প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বে ছয় বিচারকের আপিল বেঞ্চ। এরপর প্রায় তিন ঘণ্টা আপিল বিভাগের এজলাস কক্ষে অবস্থান নিয়ে তুমুল হট্টগোল করেন বিএনপিপন্থি আইনজীবীরা।

এ পরিস্থিতিতে নিয়মিত বিচারিক কার্যক্রম বন্ধ হয়ে গেলে এক পর্যায়ে প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন বলেন, “বাড়াবাড়ির একটা সীমা থাকা দরকার।… এটা নজিরবিহীন।”

এ প্রসঙ্গে মির্জা ফখরুল বলেন, “নজিরবিহীন তো আমরাও মনে করছি। আমরা তো মনে করছি যে, এই ধরনের সিদ্ধান্ত (আপিল বিভাগের সিদ্ধান্ত) নজিরবিহীন।

“যেখানে একজন সাবেক প্রধানমন্ত্রী গুরুতর অবস্থায়, অসুস্থ অবস্থায় আছেন। তার চিকিৎসার জন্য বেইল পিটিশন করা হয়েছে, সেটাকে কোনো গুরুত্ব না দিয়ে ওই যারা আদেশ মানল না, তাদেরকে আরও সময় দিলেন… দুর্ভাগ্য এই দেশের ও জাতির।”

By Abraham

Translate »