জাতীয়

সুচির ‘নৈতিক অবক্ষয়’ দেখে দুঃখ পেয়েছেন মোমেন

Advertisements

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আবদুল মোমেন বলেছেন, মিয়ানমারের নেতা অং সান সুচি’র নৈতিক অবক্ষয় দেখে দুঃখ পেয়েছি। এক সময় যিনি গণতন্ত্র ও মানবাধিকারের আইকন ছিলেন তিনিই গণহত্যার পক্ষে সাফাই গাইতে হেগ গেছেন।
আজ পররাষ্ট্রমন্ত্রীর কার্যালয়ে সংবাদকর্মীদের বলেন, শান্তিতে নোবেল বিজয়ী অং সান সুচি যিনি গণতন্ত্র ও মানবাধিকারের আইকন ছিলেন, তিনিই মিয়ানমারের সামরিক নেতৃত্বাধীন গণহত্যার অভিযোগে আন্তর্জাতিক বিচারিক আদালতের (আইসিজে) শুনানিতে কাঠগড়ায় দাঁড়িয়েছেন। তার নৈতিক অবক্ষয় দেখে আমি দুঃখ পেয়েছি।
মোমেন জানান, কয়েক বছর আগে মিয়ানমারের সামরিক শাসকদের কারাগারে থাকা সুচির মুক্তি দাবিতে তিনি নিজেও বেশ কয়েকটি সড়কে বিক্ষোভ সমাবেশে যোগ দিয়েছিলেন।অথচ আজ সময়ের সাথে-সাথে তিনিই গণহত্যার পক্ষে সাফাই গাইতে হেগের আদালতে হাজির হয়েছেন।
জাপানী রাষ্ট্রদূত ইতো নওকি ও মার্কিন রাষ্ট্রদূত আর্ল আর. মিলারের সঙ্গে পরপর দু’টি বৈঠক শেষে পররাষ্ট্রমন্ত্রী সাংবাদিকদের কাছে এই মন্তব্য করেন।
মোমেন বলেন, ‘আমি আশাকরি তিনি (সুচি) তার অর্ন্তদৃষ্টি ফিরে পাবেন (মানবাধিকারের পক্ষে দাঁড়ানোর জন্য)।
মোমেন বলেন, মিয়ানমারের বিরুদ্ধে গণহত্যার এই অভিযোগ আনায় গাম্বিয়া অত্যন্ত প্রশংসার দাবিদার, আইসিজেতে ‘এই মামলা নিয়ে গাম্বিয়ার মতো একটি দেশ এগিয়ে এসেছে বলে আমরা তাদেরকে নিয়ে গর্ববোধ করি।’ তিনি বলেন, ‘গতকালের শুনানিতে মিয়ানমারের নৃশংসতার বিরুদ্ধে গাম্বিয়ার বক্তব্য ভালো হয়েছে।’