Advertisements

কথিত রাজাকারের তালিকায় নিজের নাম থাকায় ক্ষোভ প্রকাশ করে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের চিফ প্রসিকিউটর গোলাম আরিফ টিপুর বলেছেন, আমি বিস্মিত, মর্মাহত ও অপমানিত।

মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের কথিত রাজাকার তালিকায় তার নাম আসায় মঙ্গলবার এ নিয়ে সংবাদ সম্মেলন করেন তিনি।

 

সেখানে তিনি বলেন, রাজাকারের তালিকায় আমার নাম দেখে বিস্মিত, মর্মাহত ও অপমানিত বোধ করছি। আমি বিস্মিত। কারণ মুক্তিযুদ্ধা বিষয়ক মন্ত্রণালয় থেকে প্রকাশিত ২২/৭/২০১৩ তারিখে প্রজ্ঞাপনে রাজশাহী জেলার ৩৩ নং তালিকাভুক্ত মুক্তিযোদ্ধা আমি।

‘‘আমি একজন মুক্তিযোদ্ধা। মন্ত্রণালয় আমাকে মুক্তিযুদ্ধ সনদ দিয়েছে। আমি মুক্তিযোদ্ধা ভাতাও পাচ্ছি। এমনকি ২০১০ সালে আমাকে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালে চিফ প্রসিকিউটর হিসেবে নিয়োগ করা হয়েছে।’’

গোলাম আরিফ আরও বলেন, ‘আমি ৫২ ভাষা আন্দোলন থেকে শুরু করে ’৫৪, ‘৬৯, ’৭০ এবং ঐতিহাসিক মুক্তিযুদ্ধের সক্রিয় অংশগ্রহণকারী। আমাকে একুশে পদকেও ভূষিত করা হয়েছে।’’
বিজ্ঞাপন

 

‘‘কিন্তু গত রোববার ১৫ ডিসেম্বর প্রকাশিত ৭১ রাজাকার তালিকায় রাজশাহী অঞ্চলের ক্রমিক পৃষ্ঠা ১১ ক্রমিক নং ৮৯, এবং পূর্বের নথির ৬০৬ এর ৭২-এ ঠিকানা বিহীন এমডি গোলাম আরিফ নাম লেখা আছে। আমি মনে করি, সংশ্লিষ্ট তালিকা প্রকাশে সীমাহীন অযত্ন,পরীক্ষা-নিরীক্ষা না করে অত্যন্ত অবহেলার সাথে এই তালিকা প্রচার এবং প্রকাশ করা হয়েছে।’’

তিনি ভুল সংশোধন করে নতুন প্রজ্ঞাপন জারি করে তা গণমাধ্যমে প্রকাশ এবং প্রচারেরও দাবি করেন। পাশাপাশি এই বিতর্কিত তালিকা প্রণয়নে যারা জড়িত, তাদের সবার সম্পর্কে তদন্ত করে ব্যবস্থা নিতে আহ্বান জানান।

রোববার এক সংবাদ সম্মেলন করে প্রথম দফায় ১০,৭৮৯ জন রাজাকারের তালিকা প্রকাশ করে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়।

সেই তালিকা প্রকাশের পর দেখা যায়, তাতে অনেক মুক্তিযোদ্ধার নামও রয়েছে। এ নিয়ে বিতর্ক তৈরি হয় সারাদেশে।

অনেকেই দাবি করছেন, প্রকাশিত রাজাকারের তালিকা এখনই সংশোধন করে প্রকৃত রাজাকারদের নাম অন্তর্ভুক্ত করতে হবে।

By Abraham

Translate »