Advertisements

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে বিশাখাপত্তনমে মোহাম্মদ শামি প্রথমে হ্যাটট্রিকের সুযোগ তৈরি করেছিলেন। তার পরপর দুই বলে আউট হন নিকোলাস পুরান ও কাইরন পোলার্ড। কিন্তু শামির হ্যাটট্রিক হতে দেননি জেসন হোল্ডার।

সেই হোল্ডারকে আউট করে দুই ওভার পর হ্যাটট্রিকের সুযোগ তৈরি করেন কুলদীপ যাদব। এর আগের বলেই আউট করেন শাইপ হোপকে। হ্যাটট্রিক বলটিতে দ্বিতীয় স্লিপে জাদেজার হাতে ক্যাচ দেন আলজারি জোসেফ। শামি না পারলেও কুলদীপ তুলে নেন হ্যাটট্রিক।

ভারতের একমাত্র ক্রিকেটের হিসেবে আন্তর্জাতিক ওয়ানডেতে দুটি হ্যাটট্রিকের রেকর্ড গড়লেন কুলদীপ। এর আগে ২০১৭ সালে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে হ্যাটট্রিক করেছিলেন এ রিস্ট স্পিনার। অনুর্ধ্ব-১৯ ক্রিকেটেও রয়েছে তার হ্যাটট্রিক।

৩৩তম ওভারে বোলিংয়ে আসেন কুলদীপ। তার অষ্টম ওভারের ঘটনা। অফস্ট্যাম্পের বাইরের বল টেনে ডিপ মিড উইকেট দিয়ে উড়াতে চেয়েছিলেন শাই হোপ। ব্যাট-বলে টাইমিং হয়নি। সীমানায় দারুণ ক্যাচ ধরেন ভারতের অধিনায়ক কোহলি।

পরের বলে হোল্ডার স্ট্যাম্পড হন। স্পিনে পরাস্ত হন দীর্ঘদেহী হোল্ডার। হ্যাটট্রিক বলের জন্য দ্বিতীয় স্লিপে জাজেদাকে নিয়ে আসেন কোহলি। তাতেই কাজ হয়ে যায়। দারুণ এজে বল যায় তার হাতে। হ্যাটট্রিক পূরণ কুলদীপের।

ওয়ানডে ভারতের এটি পঞ্চম হ্যাটট্রিক। কুলদীপের দুটি বাদে হ্যাটট্রিক আছে চেতান শর্মা (১৯৮৭), কপিল দেব (১৯৯১) ও মোহাম্মদ শামির (২০১৯)। চলতি বছর বিশ্বকাপে আফগানিস্তানের বিপক্ষে শামি পেয়েছিলেন হ্যাটট্রিকের স্বাদ।

এছাড়া কুলদীপ বাদে ওয়ানডে ক্রিকেটে দুটি করে হ্যাটট্রিক আছে চার ক্রিকেটারের। তারা হলেন, পাকিস্তানের ওয়াসিম আকরাম, সালকায়েন মুশতাক, শ্রীলঙ্কার চামিন্দা ভাস এবং নিউজিল্যান্ডের ট্রেন্ট বোল্টের। সর্বোচ্চ তিনটি হ্যাটট্রিকের মালিক লাসিথ মালিঙ্গা।

By Abraham

Translate »