Advertisements

শতবর্ষ পেরিয়েছেন আগেই। বয়সের ভারে নুয়ে পড়েছে শরীর। চলতে হয় লাঠিতে ভর দিয়ে। যে কোনো সময়ই বিদায় নিতে হতে পারেন পৃথিবী থেকে। কিন্তু তাতে তার স্বপ্ন পূরণের পথে বাধা হয়ে দাঁড়ায়নি। তার জীবনের শেষ ইচ্ছা শেখের বেটিকে (জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কন্যা শেখ হাসিনা) একনজর দেখা। তাকে প্রাণভরে দোয়া করা।

জীবনের শেষ ইচ্ছা পূরণে জীবনের ঝুঁকি নিয়েছেন। শৈত্যপ্রবাহ আর নানা প্রতিকূলতা উপেক্ষা করে কুষ্টিয়া থেকে ছুটে এসেছেন আওয়ামী লীগের ২১তম সম্মেলনে। অপেক্ষা করেছিলেন কখন শেখের ব্যাটি আসেন। অবশেষে তার স্বপ্ন পূরণ হয়েছে। তিনি দূর থেকে একনজর দেখেছেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে। দেখে প্রাণভরে দোয়া করেছেন।

জানা গেছে, ইসহাক আলী কুষ্টিয়া জেলার সদর থানার আব্দালপুর ইউপির বাসিন্দা। ব্রিটিশ বিরোধী তেভাগা আন্দোলন, ভাষা আন্দোলন এবং মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক ছিলেন তিনি। কুষ্টিয়া সদর থানা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতির দায়িত্বে থাকা ইসহাক আলী চারবার ইউপি চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করেছেন।

ইসহাক আলীর ছবি ফেসুবকে শেয়ার করে আওয়ামী লীগের উপ দফতর সম্পাদক ও প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী বিপ্লব বড়ুয়া লেখেন, আওয়ামী লীগ এক অনুভূতির নাম। প্রজন্ম থেকে প্রজন্মের কাছে এই অনুভূতি বেঁচে থাকবে, যতদিন বাংলাদেশ থাকবে। জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু।

ইসহাক আলীর মতো আরো অনেকেই দেশের দূরদূরান্ত থেকে আওয়ামী লীগের সম্মেলনে অংশ নিতে ঢাকায় ছুটে এসেছেন।

সিরাজগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি বেলাল হোসেন। দীর্ঘদিন ধরে দুরারোগ্য ক্যান্সারে আক্রান্ত তিনি। তিনিও সম্মেলনে অংশ নিয়েছেন। ছেলের হাত ধরে ঘুরে বেরিয়েছেন গোটা সম্মেলন স্থল।

By Abraham

Translate »