Advertisements

ভারতের পূর্বাঞ্চলীয় রাজ্য ঝাড়খণ্ডের বিধানসভা নির্বাচনে হেরে গেছে ক্ষমতাসীন দল বিজেপি।  রাজ্যটিতে সংখ্যাগরিষ্ঠ আসন নিশ্চিত করে সরকার গঠন করতে যাচ্ছে আঞ্চলিক দল ঝাড়খণ্ড মুক্তি মোর্চা (জেএমএম) ও জাতীয় কংগ্রেসের জোট। 

সোমবারের (২৩ ডিসেম্বর) এই নির্বাচনে ইতোমধ্যে হার মেনে নিয়ে জনগণের রায়কে শ্রদ্ধা জানানোর ঘোষণা দিয়েছেন বিজেপি প্রধান অমিত শাহ। তিনি বলেন, ঝাড়খণ্ডের জনগণের রায়কে শ্রদ্ধা করে বিজেপি।

ঝাড়খণ্ড বিধানসভায় মোট আসন সংখ্যা ৮১টি। সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিশ্চিতে দরকার পড়ে ৪১ আসন। তবে ৪৬টি আসন পেয়ে জয় নিশ্চিত করেছে জেএমএম-কংগ্রেস জোট। অন্যদিকে বিজেপি মোটে ২৫টি আসন পাওয়ায় ইতোমধ্যে সেখানে জয় উদযাপন শুরু করে দিয়েছে কংগ্রেস সমর্থকরা। জোটের নেতা হেমন্ত শোরেনই হতে যাচ্ছেন সেখানকার পরবর্তী মুখ্যমন্ত্রী।

এদিকে, দেশটির গণমাধ্যম এনডিটিভি বলছে, কেন্দ্রীয় সরকারে থাকলেও আঞ্চলিক নির্বাচনে ক্রমেই প্রভাব হারাচ্ছে বিজেপি। গত বছর রাজস্থান, মধ্যপ্রদেশ ও ছত্তিশগড়েও কংগ্রেসের কাছে হেরে গিয়েছিলো নরেন্দ্র মোদির দল।

ঝাড়খণ্ডে যদিও ২০১৪ সালের ডিসেম্বরে অনুষ্ঠিত নির্বাচনে ৩৭ আসনে জয়লাভ করে বিজেপি। জোটসঙ্গী আজসু পেয়েছিল পাঁচটি আসন। কিন্তু ২০১৫-সালের শুরুতেই জেভিএমের ছয় বিধায়ক বিজেপিতে চলে আসার পর বিধানসভায় একাই সংখ্যাগরিষ্ঠ হয়ে যায় বিজেপি।

ঝাড়খণ্ডের ইতিহাসে সেটাই প্রথম কোনও দল একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা পায় বিধানসভায়। রাজ্যটিতে প্রথমবারের মতো টানা পাঁচ বছর মুখ্যমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন রঘুবর দাস। কিন্তু রঘুবরের আগে, আড়াই বছর পর্যন্তও টিকে থাকতে পারেননি কোনও মুখ্যমন্ত্রী। তাই এবার কি হয় সেটাই দেখার অপেক্ষা।

By Abraham

Translate »