Advertisements

কুমিল্লার মুরাদনগরে মায়ের সামনে ছেলেকে হাত-পা বেঁধে নির্যাতনকারী গ্রাম্য মাতব্বর আবু তাহেরকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার (২৬ ডিসেম্বর) রাত সাড়ে ১১টার দিকে নারায়ণগঞ্জ থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেপ্তারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন মুরাদনগর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনজুরুল আলম।

এর আগে উপজেলার দারোরা ইউনিয়নের কাজিয়াতল গ্রামের পূর্বপাড়ায় মায়ের সামনে রাজু চন্দ্র নামে এক কিশোরকে হাত-পা বেঁধে নির্যাতনের একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে।

নির্যাতনের শিকার যুবক ওই গ্রামের রাখাল চন্দ্রের ছেলে রাজু চন্দ্র। আর অভিযুক্ত মাতব্বরের নাম আবু তাহের কন্টাক্টর। এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার নির্যাতনের শিকার রাজুর বড় ভাই সজল চন্দ্র বিশ্বাস মুরাদনগর থানায় আবু তাহেরকে আসামি করে একটি মামলা দায়ের করেন।

রাজু চন্দ্রের বাবা রাখাল চন্দ্র জানান, রাজু ঢাকার তাঁতিবাজার এলাকায় একটি স্বর্ণের দোকানে কাজ করতো। মানসিক সমস্যার কারণে ওই দোকান থেকে তাকে বাড়িতে পাঠিয়ে দেওয়া হয়। সে মানুষকে গালমন্দ ও ভাঙচুর করে। সেই কারণে তার হাত-পা বেঁধে রাখা হয়। বুধবার বিকালে গ্রামের মাতব্বর আবু তাহের তাদের বাড়ির পাশ দিয়ে যাওয়ার সময় মাতব্বরকে গালমন্দ করে রাজু। তখন মাতব্বর রাজুকে লাথি মারে।

ভাই সজল চন্দ্র বিশ্বাস জানান, এমন অমানবিক আচরণের বিচার চেয়ে আমরা এলাকার অন্যান্য সর্দার ও মাতব্বরদের কাছে গিয়েছি। তারা বিচার করেননি। পরে আবু তাহেরের বিচার চেয়ে মুরাদনগর থানায় মামলা করেছি।

স্থানীয়রা জানান, বুধবার বিকেলে কোনো কারণ ছাড়াই হাত-পা বেঁধে রাজু চন্দ্রকে মারধর করেন মাতব্বর আবু তাহের। বাধা দিয়ে রুখতে না পেরে সেই নির্যাতনের দৃশ্য দাঁড়িয়ে দেখেছেন রাজুর মা। ঘটনাটি উপস্থিত কেউ মোবাইলে ধারণ করে তা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়। একদিনের মধ্যে নির্যাতনের ভিডিওটি ফেসবুকে ভাইরাল হয়ে যায়।

By Abraham

Translate »