Advertisements

কোরীয় উপদ্বীপের আকাশে একটি মার্কিন গোয়েন্দা বিমান উড়তে দেখা গেছে বলে সংবাদ সূত্রগুলো খবর দিয়েছে। দক্ষিণ কোরিয়ার ‘ইয়োনহ্যাপ’ বার্তা সংস্থা জানিয়েছে, ওই মার্কিন গোয়েন্দা বিমানটিকে গতরাতে (বৃহস্পতিবার রাতে) কোরীয় উপদ্বীপের আকাশে উড়তে দেখা যায়।

এর আগে মঙ্গল ও বুধবার একই অঞ্চলের আকাশ দিয়ে চারটি মার্কিন গোয়েন্দা বিমান উড়ে যায়। এমন সময় আমেরিকা কোরীয় উপদ্বীপে নিজের সামরিক উপস্থিতির জানান দিল যখন উত্তর কোরিয়া কঠোরভাবে ওই অঞ্চলে মার্কিন সামরিক উপস্থিতির বিরোধিতা করেছে।

এ ছাড়া, পিয়ংইয়ং নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার ও আলোচনায় বসার জন্য  ওয়াশিংটনকে চলতি বছরের শেষ পর্যন্ত সময় বেধে দিয়েছে। আগামী ৩১ ডিসেম্বরের মধ্যে সংলাপ শুরু না হলে যেকোনো পরিণতির জন্য আমেরিকাকে দায়ী থাকতে হবে বলেও উত্তর কোরিয়া হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছে।

পিয়ংইয়ং আরো বলেছে, চলতি বছরের শেষ নাগাদ সংলাপ শুরু না হলে ওয়াশিংটনের জন্য ক্রিসমাসের উপহার হিসেবে একটি দূরপাল্লার ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালানো হবে।

আমেরিকা ও উত্তর কোরিয়ার শীর্ষ নেতাদের মধ্যে এ পর্যন্ত তিন দফা বৈঠক ব্যর্থ হয়েছে। গতকাল উত্তর কোরিয়া জাপান সাগর অভিমুখে একটি ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করেছে বলে কোনো কোনো সূত্র খবর দিলেও অন্য সূত্রগুলো তা অস্বীকার করেছে। পিয়ংইয়ং এ খবর সম্পর্কে কোনো মন্তব্য করেনি।

By Abraham

Translate »