Advertisements

প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) নুরুল হুদা ইভিএম নিয়ে বিএনপিকে শঙ্কিত না হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন। তিনি সাংবাদিকদের বলেন, ইসি ইভিএম ব্যবহারের সিদ্ধান্তে অনড়।

সোমবার (৬ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় নির্বাচন কমিশনে সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন নিয়ে বিএনপি নেতাদের সঙ্গে বৈঠক শেষে এ কথা জানান সিইসি।

তিনি বলেন, বিএনপির অভিযোগ অনুযায়ী নির্বাচনের আগে জরুরি প্রয়োজন ছাড়া কোনো প্রাার্থীকে যাতে হয়রানি করা না হয় সেজন্য পুলিশকে কঠোরভাবে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। বিএনপি নেতাদের বুঝিয়ে বলা হয়েছে ইভিএম নিয়ে তাদের শঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই। আমরা তাদের বুঝিয়ে বলেছি যে, এ জিনিসটা যার ভোট তিনি দিতে পারবেন এবং কোনো রকম ভোট কারচুপি হওয়ার সুযোগ নেই।

এদিকে বৈঠক শেষে বিএনপি স্থায়ী কমিটির সদস্য আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী ইলেক্ট্রনিক্স ভোটিং মেশিনকে (ইভিএম) নিঃশব্দে ও নীরবে ভোট চুরির একটি নতুন প্রকল্প বলে আখ্যায়িত করে আবারও তা বাতিলের জোর দাবি জানান।

ভোটাররা সারাদিন ভোট দেয়ার পর আগেই প্রোগ্রামিংয়ের মাধ্যমে ঠিক করে রাখা ফলাফল ইভিএমের মাধ্যমে প্রকাশ করা হবে বলেও দাবি করেন তিনি। খসরু বলেন, ২০১৪ সালে এককভাবে ভোট চুরি হয়েছে, ২০১৮ সালে হয়েছে, সেগুলো শেষ হয়ে যাওয়ার পর তারা ভাবছে, তাদের নতুন পন্থায় যেতে হবে, নতুন পন্থা হচ্ছে ইভিএম। বিশ্বে ২০০টা দেশের মধ্যে মাত্র ৪টিতে ব্যবহার হচ্ছে ইভিএম। ওই দেশগুলোতে কিন্তু সরকার এবং নির্বাচন কমিশন প্রশ্নবিদ্ধ না। সুতরাং তবে আমরা ইভিএমের তীব্র বিরোধিতা করেছি, এবং ইভিএমের মাধ্যমে আমরা মনে করি না বাংলাদেশের মানুষ তাদের ভোটাধিকার ফিরে পাবেন।

এদিন বিকেলে রাজধানীর আগারগাঁওয়ে নির্বাচন ভবনে ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন নিয়ে নির্বাচন কমিশনের সঙ্গে বৈঠক করে বিএনপির প্রতিনিধি দল। প্রধান নির্বাচন কমিশনার নুরুল হুদার বৈঠকে নির্বাচন কমিশনের নেতৃত্ব দেন।

বৈঠকে ঢাকা উত্তরের বিএনপির মেয়র প্রার্থী তাবিথ আউয়াল, দক্ষিণের মেয়র প্রার্থী ইশরাক হোসেন উপস্থিত ছিলেন। এছাড়া বৈঠকে বিএনপির আরো চারজন সিনিয়র নেতা উপস্থিত ছিলেন।

By Abraham

Translate »