খাদ্য ও পুষ্টি

বয়স ৩০ হলে যেসব খাবার খাবেন না

Advertisements

খাবার রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা যেমন বাড়িয়ে তোলে তেমনি ক্ষতিও করে। তাই কোনো বয়সেই অস্বাস্থ্যকর খাবার খাওয়া ঠিক না। বিশেষ করে বয়স ৩০ হলে সুস্থ থাকতে একেবারেই বাদ দিতে হবে কিছু কিছু খাবার। কারণ তখন শরীর অনেক খাবার সহজে গ্রহণ করতে পারে না।  এই বয়সে কিছু কিছু খাবার এড়িয়ে না গেলে শরীরে বিভিন্ন রোগ বাসা বাঁধতে পারে। ক্যান্সার, ডায়াবেটিস এবং হার্টের মতো অসুখ থেকে নিজেকে সুস্থ রাখতে নিয়মিত খাদ্য তালিকার দিকে নজর রাখতে হবে।

বয়স ৩০ হলে সুস্থ থাকতে বিশেষজ্ঞদের মতে যেসব খাবার বাদ দিতে হবে

স্বাদযুক্ত দই

দই স্বাস্থ্যের জন্য ভালো। কিন্তু বিভিন্ন স্বাদের দই স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর। দইয়ে স্বাদ দিতে তাতে চিনি দেওয়া হয়। চিনি স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর। আমেরিকান হার্ট অ্যাসোসিয়েশন জানান,  প্রতিদিন একজন পুরুষের ৩৮ গ্রাম এবং নারীর ২৫ গ্রাম দই খাওয়া ভালো।

সয়া 

সয়া পুষ্টিকর খাবার। তাই বলে মাংস থেকে যেসব পুষ্টিকর উপাদান পাওয়া যায়, সেসবের চাহিদা পূরণ করে না সয়া। সয়া শরীরের জন্য সাময়িক ভালো হলেও দীর্ঘস্থায়ী ক্ষতি করে। সয়া থাইরয়েডের ফাংশনের জন্যও ক্ষতিকর।

স্ট্র 

বিভিন্ন বেভারেজ কিংবা তরল জাতীয় খাবার খাওয়ার ক্ষেত্রে সাধারণত স্ট্র ব্যবহার করা হয়। স্ট্র দিয়ে খেলে ত্বক কুঁচকে যাওয়ার আশঙ্কা থাকে। এ ছাড়া বেশিরভাগ স্ট্র প্লাস্টিক জাতীয় হওয়ায় এটি পরিবেশের জন্যও হুমকিস্বরূপ।

চাষ করা মাছ

বাজারে ৭০ শতাংশ মাছ আসে চাষের। এসব মাছ দ্রুত বড় করতে যেসব খাবার খাওয়ানো হয়, সেসবের অধিকাংশ স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর। শরীরের প্রোটিনের চাহিদা পূরণ করতে নদীর কিংবা সামুদ্রিক মাছ খাওয়া ভালো।

সাদা পাউরুটি

ছোট বেলায় সাদা পাউরুটি খেয়ে সকাল শুরু করতেন। কিন্তু বয়স ৩০ হলে এ খাবার এড়িয়ে চলা ভালো। এতে ফাইবারের মাত্রা একেবারেই কম। খাবার হজম করতে এবং সুস্থ থাকতে প্রচুর পরিমাণে ফাইবার রয়েছে এমন খাওয়া দরকার।

ফলের জুস

ফলের চেয়ে ফলের জুস খেতে বেশি স্বাদ। কিন্তু জুসের চেয়ে ফল বেশি স্বাস্থকর খাবার। জুস করার কারণে ফাইবারের পরিমাণ কম খাওয়া হয়। এবং জুস করার করতে গিয়ে তাপে ফলের বিভিন্ন উপাদানের পুষ্টিগুণ নষ্ট হয়ে যায়। এ ছাড়া বাণিজ্যিকভাবে যেসব জুস তৈরি করা তাতে স্বাদ বৃদ্ধি করতে চিনি মেশানো হয়। চিনি স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর।

দোকান থেকে কেনা বেকারি পণ্য ও জাংক ফুড

দোকান থেকে যেসব বেকারি পণ্য কেনা হয় সেসব খাবারে প্রচুর পরিমাণে রাসায়নিক পদার্থ থাকে। এসব রাসায়নিক পদার্থ শরীরের জন্য ক্ষতিকর। তাই সুস্থ থাকতে নিজেই ওভেনে এসব খাবার তৈরি করে নিন। এছাড়া জাংক ফুড একেবারেই খাদ্য তালিকা থেকে বাদ দিন। সূত্র: এনডিটিভি