Advertisements

মাহমুদউল্লাহ রিয়াদকে অধিনায়ক করে পাকিস্তান সফরের টি-টোয়েন্টি দল ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ।

শনিবার দুপুরে ১৫ সদস্যের দল ঘোষণা করে বিসিবি।

আগামী ২৩ জানুয়ারি পাকিস্তানের উদ্দেশ্যে রওণা হবে দল। ২৪, ২৫ ও ২৭ জানুয়ারি লাহোরে তিনটি টি-টোয়েন্টি খেলবে দুই দল। ২৮ জানুয়ারি দেশে ফিরবে দল।

বাংলাদেশ স্কোয়াড: মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ (অধিনায়ক), তামিম ইকবাল খান, সৌম্য সরকার, নাঈম শেখ, নাজমুল হোসেন শান্ত, লিটন কুমার দাশ, মোহাম্মদ মিথুন, আফিফ হোসেন ধ্রুব, মাহেদী হাসান, আমিনুল ইসলাম বিপ্লব, মুস্তাফিজুর রহমান, শফিউল ইসলাম, আল-আমিন হোসেন, রুবেল হোসেন ও হাসান মাহমুদ।

নিরাপত্তা ইস্যুতে শুরুতে পাকিস্তান সফরে আগ্রহ ছিল না বাংলাদেশের। বিসিবি জানিয়েছিল, পাকিস্তানে শুধুমাত্র টি-টোয়েন্টি খেলতে চায় বাংলাদেশ। টেস্ট হতে হবে নিরপেক্ষ ভেন্যুতে। পিসিবি বিসিবির প্রস্তাব মেনে নেয়নি বরং তারা জানায়, পাকিস্তানে গিয়েই টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের দুই ম্যাচ খেলতে হবে বাংলাদেশের।

সফর নিয়ে দুই বোর্ড আলোচনা চালাতে থাকে। সরকার থেকে বিসিবি নিরাপত্তা ছাড়পত্র চেয়েছিল। সরকার পাকিস্তান সফরের অনুমতি দিলেও সাফ জানিয়ে দেয়, সফর হতে হবে সংক্ষিপ্ত। পাশাপাশি দলের সঙ্গে রাখতে হবে নিজস্ব নিরাপত্তা দল। শেষমেশ দুই দেশের বোর্ড প্রধান গত সপ্তাহে দুবাইয়ে সফর নিয়ে চূড়ান্ত বৈঠকে বসে এবং সেখানেই সিদ্ধান্ত হয় বাংলাদেশ তিনবার পাকিস্তান সফর করবে। প্রত্যেক সফরই হবে সংক্ষিপ্ত।

তিন ধাপে পাকিস্তানে যাবে বাংলাদেশ। চলতি মাসেই খেলবে তিনটি টি-টোয়েন্টি। ফেব্রুয়ারিতে একটি টেস্ট এবং এপ্রিলে একটি ওয়ানডে ও একটি টেস্ট। এফটিপির বাইরে গিয়ে ওয়ানডে ম্যাচ যুক্ত করেছে দুই বোর্ড।

এফটিপির বাইরে ওয়ানডে যুক্ত করার কারণ জানাতে গিয়ে নাজমুল হাসান বলেছেন, ‘তিনবারে একটা সিরিজ আয়োজন করা অনেক ব্যয়বহুল। ওরা তাতেও রাজি। পাকিস্তানে গিয়ে পাকিস্তানের সাথে খেলার আগে একটা প্রস্তুতি ম্যাচ দরকার। আমাদের কাছে মনে হয়েছে টি-টোয়েন্টির চেয়ে ওয়ানডে হলে হয়তো অনুশীলনটা ভালো হবে। টি-টোয়েন্টির থেকে ওয়ানডের ওভারও বেশি। অনুশীলনের বেশি সুযোগ পাওয়া যাবে।’

By Abraham

Translate »