Advertisements

ব্যক্তিগত হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত হয়েছে মারা গেছেন বাস্কেটবল কিংবদন্তি কোবি ব্রায়ান্ট। লস অ্যাঞ্জেলেস লেকারসের সাবেক এ তারকার ব্যক্তিগত হেলিকপ্টারটি ক্যালিফোর্নিয়ার কালাবাসাসে স্থানীয় সময় রবিবার সকালে বিধ্বস্ত হয়। কোবি ব্রায়ান্টের সঙ্গে তার ১৩ বছর বয়সী মেয়ে গায়ানা মারিয়াও মারা গেছেন।

এদিকে ২০১২ সালের ১৪ নভেম্বর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটারে নোসো নামে একজন লিখেছিলেন, ‘হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত হয়ে মারা যাবেন কোবি ব্রায়ান্ট।’ স্বভাবতই মার্কিন বাস্কেটবল কিংবদন্তির মৃত্যুর পর পোস্টটি সামনে আসায় সোশ্যাল অ্যাক্টিভিস্টদের গা শিউরে উঠেছে।

ন্যাশনাল বাস্কেটবল অ্যাসোসিয়েশনের (এনবিএ) বিখ্যাত খেলোয়াড় ছিলেন কোবি। মাত্র ৪১ বছর বয়সে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। আকস্মিক দুর্ঘটনার দিন কুয়াশাচ্ছন্ন ক্যালিফোর্নিয়ার কালাবাসাসে পাহাড়ের চূড়ায় ধাক্কা খায় তার হেলিকপ্টার। দ্রুত নিচে ভেঙে পড়ে সেটি।

কোবির সঙ্গে ছিলেন নিজের ১৩ বছরের মেয়ে জিয়ানা মারি অনোরে ব্রায়ান্ট, বাস্কেটবল কোচ জন আলতোবেল্লি, তার স্ত্রী কেরি, মেয়ে অ্যালিসাসহ আরো আটজন সঙ্গী। তন্মধ্যে দুজন কিশোরী খেলোয়াড়ও ছিলেন। ভয়াবহ ওই দুর্ঘটনায় সবাই মারা যান।

এ ঘটনায় রবিবার সকাল থেকে ক্রীড়াবিশ্বে নেমে এসেছে শোকের ছায়া। এরই মধ্যে আচমকা সামনে এলো আট বছর আগের সেই টুইট। পোস্টটি দেখে একেকজনের একেকরকম প্রশ্ন জেগেছে।

কীভাবে এমনটা হলো? এটা কি নকল ক্যাপশন? টুইটারের কারসাজি? নাকি সত্যিই এরকমভাবে মিলে গেছে দুটি ঘটনা? এসবের জবাবও একে অপরকে দিয়েছেন সোশ্যাল অ্যাক্টিভিস্টরা।

একজন ব্যাখ্যা করেছেন, টুইটারে কোনো পোস্টের তারিখ কারসাজি করে পিছিয়ে দেয়া যায় না। অত আগের একটি পোস্ট পরবর্তীকালে কোনোভাবে সম্পাদনা করা যায় না।

তা হলে কেমন করে এটি হলো? শেষ পর্যন্ত প্রশ্নটি থেকেই যাচ্ছে।

By Abraham

Translate »