Advertisements

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, বিএনপি ঢাকার বাইরে থেকে বহিরাগতদের এনে নির্বাচনের পরিবেশ বিনষ্ট করার নীল নকশা করছে। এভাবে নির্বাচনকে বানচাল করার পায়তারা করছে দলটি।

বৃহস্পতিবার  আওয়ামী লীগ সভাপতির ধানমন্ডির রাজনৈতিক কার্যালয়ে দলের সম্পাদকমণ্ডলীর সভার মুলতবি বৈঠক শেষে এসব কথা বলেন তিনি।

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপির আচার-ব্যবহারে বোঝা যায়, তারা নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করার জন্য উঠে পড়ে লেগেছে। নির্বাচনের মাঠে জনগণের কাছ থেকে আশানুরূপ সাড়া না পেয়ে বিভ্রান্ত নাবিকের মতো আচরণ করছে বিএনপি।

সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী ক্লিন ইমেজের ব্যক্তি- উল্লেখ করে তিনি বলেন, আমরা ক্লিন ইমেজের প্রার্থী দিয়ে জনগণের কাঙ্ক্ষিত আশা ও প্রত্যাশা পূরণ করতে পেরেছি। এই প্রার্থীরা ঢাকাবাসীর কাঙ্ক্ষিত আশা পূরণ করতে পাববেন। এজন্য আমরা জয়ের ব্যাপারে আশাবাদী।

নির্বাচনে সংঘর্ষের আশঙ্কা আছে কি না সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন,  আমরা প্রতিপক্ষের সঙ্গে কোনো সংঘর্ষ-সংঘাতে লিপ্ত হতে চাইনা।

ইভিএমের বিষয়  তিনি বলেন, নির্বাচনে কারচুপি ঠেকানোর জন্য ইভিএম একমাত্র উপায়। এর চেয়ে উত্তম ব্যবস্থা নেই। বিএনপি এনালগে আছে, ডিজিটালাইজড তারা হতে পারেনি। তারা এখনো অন্ধকার পথে রয়েছে। তারা ইলেকশন বলতেই বোঝে কারচুপি, ভোট ডাকাতি, কেন্দ্র দখল, বুথ দখল করা। এসব ছিল তাদের সমযয়ে।

সম্পাদকমণ্ডলীর সভার মুলতবি বৈঠকে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দীন নাছিম, সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন, বি এম মোজাম্মেল হক, এস এম কালাম হোসেন, অ্যাডভোকেট আফজাল হোসেন, সাখওয়াত হোসেন শফিক, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আব্দুস সোবহান গোলাপ, দফতর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়া,  ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ সম্পাদক সুজিত রায় নন্দি, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক আব্দুস সবুর প্রমুখ।

By Abraham

Translate »