Advertisements

মেক্সিকো সীমান্তে দীর্ঘতম চোরাচালান সুড়ঙ্গ আবিষ্কার করেছেন মার্কিন কর্মকর্তারা। গেল বছরের আগস্টেই ক্যালিফোর্নিয়ার স্যান ডিয়েগো শহর থেকে সবচেয়ে দীর্ঘতম এই চোরাচালান সুড়ঙ্গটির সন্ধান পাওয়া গেলেও বিষয়টি অস্বীকার করে আসছিল মেক্সিকান কর্তৃপক্ষ।

এদিকে মার্কিন কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে এই গুহার সন্ধান লাভের তথ্য নিশ্চিত করেছে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি।

প্রতিবেদনে বলা হয়, সুড়ঙ্গটি ৮ হাজার ৩০৯ ফুট পর্যন্ত বিস্তৃত। এটিতে লিফট, রেলপথ এবং পয়ঃনিষ্কাশন ব্যবস্থা রয়েছে। মাটির ৭০ ফুট নিচের সুড়ঙ্গটির উচ্চতা ৫ দশমিক ৫ ফুট এবং প্রস্থ ২ ফুট। এটি দিয়ে ক্যালিফোর্নিয়া স্যান ডিয়েগো থেকে মেক্সিকো সিটির টিজুয়ানা পর্যন্ত যাওয়া যায়। তবে সুড়ঙ্গের সন্ধান মিললেও সেখান থেকে কাউকে আটক করা যায়নি।

এছাড়া এটি তৈরি করতে কত সময় লেগেছে তা নিশ্চিত করে বলতে পারেনি দেশটির কাস্টমস অ্যান্ড বর্ডার প্রোটেকশন।

মার্কিন কর্তৃপক্ষের মতে, বিশ্বের অন্যতম বৃহৎ মাদক পাচারকারী সংস্থা হিসাবে বর্ণিত মেক্সিকোর সিনালোয়া কার্টেল এই অঞ্চলে পরিচালনা করে। মার্কিন বাহিনীর ধারণা, এই সুড়ঙ্গটির নির্মাতা নেতা জোয়াকিন ‘এল চপো’ গুজম্যান, যিনি আমেরিকার কারাগারে আটক রয়েছেন। তবে সুড়ঙ্গটিতে কোন আসামি বা মাদকদ্রব্য পাওয়া যায়নি। বর্তমানে এটি পরিচালনার পেছনে কে বা কারা আছেন সেই সম্পর্কে কিছুই জানায়নি কর্তৃপক্ষ।

সান দিয়েগোতে হোমল্যান্ড সিকিউরিটি ইনভেস্টিকেশনের ভারপ্রাপ্ত বিশেষ এজেন্ট কার্ডেল মোরান্ট এক বিবৃতিতে বলেছেন, ‘এই বিশেষ সুড়ঙ্গটি চোরাচালানের সুবিধার্থে ব্যবহার করা হতে পারে। এর পরিশীলতা এবং দৈর্ঘ্য এমনটাই বলছে।’

এর আগে ২০১৪ সালে স্যান ডিয়াগোতেই আরেকটি দীর্ঘ সুরঙ্গের সন্ধান পেয়েছিল যুক্তরাষ্ট্র। ওই সুড়ঙ্গটি ৩,২৫৯ ফুট বিস্তৃত ছিল। মূলত এই সব সুড়ঙ্গ দিয়েই যুক্তরাষ্ট্র থেকে মেক্সিকোতে মাদক পাচার করা হয়।

By Abraham

Translate »