Advertisements

যুক্তরাষ্ট্রের ডেল্টা ও আমেরিকান এয়ারলাইন্স চীনে তাদের সব ফ্লাইট সাময়িকভাবে বাতিল করেছে। প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাস প্রতিদিন আরও দ্রুত ছড়িয়ে পড়ায় এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে এয়ারলাইন্স দু’টি।

করোনা ভাইরাস মহামারি আকার ধারণা করার পর ব্রিটিশ এয়ারওয়েজ চীনে তাদের প্রথম ফ্লাইট বাতিল করে। এরপর কমবেশি বিভিন্ন এয়ারলাইন্স তাদের ফ্লাইট সীমিত করাসহ বন্ধ করা শুরু করে। কিছু এয়ারলাইন্সের কর্মীরা চীনে ফ্লাইট পরিচালনায় আপত্তিও জানিয়ে আসছিল।

এরই মধ্যে শুক্রবার (৩১ জানুয়ারি) যুক্তরাষ্ট্রের সংবাদমাধ্যমগুলো ডেল্টা ও আমেরিকান এয়ারলাইন্সের ফ্লাইট বাতিলের খবর জানায়।

আমেরিকান এয়ারলাইন্সের একজন মুখপাত্র জানিয়েছেন, আমরা মার্চের ২৭ তারিখ পর্যন্ত চীনে সব ধরনের ফ্লাইট বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। ডালাস ও ফোর্ট ওয়ার্থ ও লস এঞ্জেলেস আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে চীনে এয়ারলাইন্সটির ফ্লাইট চলছিল। তবে হংকংয়ে নিয়মিত ফ্লাইট চলবে।

আরেক বার্তায় ডেল্টা এয়ারলাইন্স জানিয়েছে, ফেব্রুয়ারির ৬ তারিখ থেকে এপ্রিল মাসের ৩০ তারিখ পর্যন্ত তারা কোনো ফ্লাইট পরিচালনা করবে না।

এখন পর্যন্ত সবমিলিয়ে দেশটির মূল ভূখণ্ডেই করোনা ভাইরাসে মোট মৃতের সংখ্যা ২১৩ জন। একইসঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে নতুন করে ভাইরাসটিতে আক্রান্তের সংখ্যাও, যা প্রায় নয় হাজার ছাড়িয়ে গেছে।

চীনের হুবেই প্রদেশের রাজধানী উহান থেকে উৎপত্তি হওয়া করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব অন্য দেশগুলোতেও দেখা যাচ্ছে। ইতোমধ্যে চীনের সবগুলো প্রদেশ ছাড়াও অন্তত ২০টি দেশে এ ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। এ রোগ মানুষের মাধ্যমেই দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে। ফলে চীন থেকে বাংলাদেশে আসা যাত্রীদের পরীক্ষা করা হচ্ছে। সরকারের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, করোনা ভাইরাস মোকাবিলায় সর্বোচ্চ সতর্কতা অবলম্বন করা হয়েছে।

By Abraham

Translate »