খেলার খবর

কোহলিদের হাতে হোয়াইটওয়াশ নিউজিল্যান্ড

Advertisements

সিরিজটা আগেই জিতে নিয়েছিল ভারত। এবার পাঁচ টি-টোয়েন্টি সিরিজের শেষ ম্যাচটি জিতে নিউজিল্যান্ডকে তাদেরই মাটিতে হোয়াইটওয়াশ করলো টিম ইন্ডিয়া। নিয়মিত অধিনায়ক বিরাট কোহলিকে ছাড়াই ভারত ৭ রানে জয় পেয়েছে কিউইদের বিপক্ষে।

হোয়াইটওয়াশ হলেও অবশ্য সিরিজের তৃতীয় ও চতুর্থ ম্যাচে দারুণ প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছিল ব্ল্যাক-ক্যাপরা। কিন্তু ভাগ্য সহায় না হওয়ায় দুই ম্যাচেই সুপার ওভার হেরে সিরিজ বিসর্জন দেয় তারা। হোয়াইটওয়াশের লজ্জা এড়ানোর জন্য সিরিজের শেষ ম্যাচে জয় ছাড়া বিকল্প ছিল না নিউজিল্যান্ডের সামনে। কিন্তু এবারও তীরে এসে তরী ডুবে তাদের।

ভারতের দেওয়া ১৬৪ রানের জবাবে কিউইরা নির্ধারিত ২০ ওভারে ৯ উইকেটে করে ১৫৯ রান। এর আগে রোহিত শর্মার ঝড়ো ৬০ রানের ওপর ভর করে ৩ উইকেটে ১৬৩ রান করে টিম ইন্ডিয়া।

রোববার (০২ ফেব্রুয়ারি) বে-ওভালে টসে জিতে কিউইদের ফিল্ডিংয়ে পাঠান কোহলির পরিবর্তে দলের নেতৃত্ব কাঁধে নেওয়া রোহিত। ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুতেই ওপেনার সঞ্জু স্যামসনকে (২) হারালেও ভারতের  রানের গতি সচল রাখেন আরেক ওপেনার লোকেশ রাহুল ও রোহিত। তাদের ৮৮ রানের জুটি ভাঙেন হামিশ বেনেট। ৩৩ বলে ৪ চার ও ২ ছক্কায় ৪৫ করে সাজঘরে ফিরেন রাহুল।

এরপর শ্রেয়াস আয়ারকে নিয়ে এগোতে থাকেন রোহিত। কিন্তু তিনিও ব্যক্তিগত ৪১ বলে ৬০ রান করে চোট পাওয়ায় ‘রিটায়ার্ড হার্ট’ হয়ে ফেরত যান। এর পরপরই স্কট কুগেলেজিনের দ্বিতীয় শিকার হয়ে সাজঘরে ফিরেন শিভম ‍দুবে (৫)। পরে মনীষ পাণ্ডেকে (১১) নিয়ে ভারতকে লড়াকু ইনিংস এনে দেন শ্রেয়াস (৩৩)।

জবাব দিতে নিউজিল্যান্ডও শুরুতে বিপদে পড়ে ওপেনার মার্টিন গাপটিলকে (২) হারিয়ে। এরপর দলীয় ১৭ রানেই ওপেনার কলিন মুনরো (১৫) ও টম ব্রুসকে (০) হারিয়ে ধুঁকতে থাকে তারা। খাদের কিনারে দাঁড়িয়ে দুর্দান্ত ব্যাটিং করে দলকে জয়ের স্বপ্ন দেখাতে থাকেন টিম সেইফার্ট ও রস টেইলর। দুজনে ফিফটি করে গড়েন ৯৯ রানের অবিচ্ছিন্ন জুটি।

কিন্তু দলীয় ১১৬ রানে সেইফার্ট আউট হওয়ার পরপরই তাসের ঘরের মতো ভেঙে পড়ে কিউইদের ব্যাটিং লাইন-আপ। ৩০ বলে ৫ চার ও ৩ ছক্কায় ৫০ রান করে নভদীপ সায়নিকে উইকেট উপহার দেন এই কিউই উইকেটরক্ষক। এরপর স্কোরবোর্ডে মাত্র ১৬ রান যোগ হতেই তিন ব্যাটসম্যান ড্যারিল মিচেল (২), মিচেল স্যান্টনার (৬) ও কুগেলেজিনকে (০) হারায় নিউজিল্যান্ড। ১৩৩ রানে বিদায় নেন শেষ ভরসা টেইলরও। ৪৭ বলে ৫ চার ও ২ ছ্ক্কায় ৫৩ রান করেন তিনি। এরপর জসপ্রিত বুমরাহর তৃতীয় শিকার হয়ে বিদান নেন অধিনায়ক টিম সাউদিও (৬)।

তবে শেষ ওভারে দুই ছক্কায় ম্যাচ কিছুটা হলেও জমিয়ে তুলেন ইশ সোধি (১৬)। কিন্তু জয়ের দেখাটা পায়নি নিউজিল্যান্ড। বেনেট অপরাজিত থাকেন ১ রানে।

এই ম্যাচেও দুর্দান্ত বোলিং করে ভারতকে জয় এনে দিয়ে ম্যাচ সেরা হয়েছেন বুমরাহ। ৪ ওভারে ১২ রান দিয়ে সর্বোচ্চ ৩ উইকেট নিয়েছেন তিনি। আর পুরো সিরিজে দুর্দান্ত ব্যাটিং নৈপুণ্য দেখিয়ে প্লেয়ার অব দ্য সিরিজ হয়েছেন লোকেশ রাহুল।