Advertisements

অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেছেন, অর্থের অভাবে নয়, চীন থেকে বাংলাদেশিদের আর সরকারিভাবে দেশে আনা যাচ্ছে না অন্য কারণে। তিনি বলেন, ‘অর্থ কোনো সমস্যা নয়। টাকার কোনো অভাব নেই দেশে। অভাব থাকার কারণও নেই। আসলে চীনে কোনো উড়োজাহাজ গেলে সেই উড়োজাহাজের পাইলট ও ক্রুদের অন্য কোনো দেশ আর ঢুকতে দিচ্ছে না। এ কারণেই চীনে আটকে পড়া বাংলাদেশিদের এই মুহূর্তে দেশে ফেরত আনা যাচ্ছে না।’

বাংলাদেশ বিমানের একটি উড়োজাহাজ চীনের উহান থেকে ৩১২ বাংলাদেশিকে দেশে ফিরিয়ে আনে। এ জন্য ৩ কোটি টাকা খরচ হয়েছে এবং তহবিলে এ মারফত আর কোনো টাকা নেই বলে জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আবদুল মোমেন। সাংবাদিকেরা এ বিষয়েই অর্থমন্ত্রীর কাছে প্রশ্ন করেন।

অর্থমন্ত্রী মুস্তফা কামাল বলেন, ৩০০ থেকে ৪০০ বাংলাদেশিকে আমরা দেশে ফিরিয়ে এনেছি। কিন্তু যে উড়োজাহাজ তাদের নিয়ে এসেছে, সেই উড়োজাহাজের পাইলট এবং ক্রুদের অন্য কোনো দেশ ঢুকতে দিচ্ছে না। এমনকি সেই উড়োজাহাজটি সিঙ্গাপুর পর্যন্তও যেতে পারছে না। ফলে দেশের বিরাট ক্ষতি হয়ে যেতে পারে। আর সে কারণেই আমরা চীনে আর কোনো উড়োজাহাজ পাঠাতে পারছি না।’

উহান থেকে প্রথম দফায় ফেরা বাংলাদেশিদের কারও মধ্যে করোনাভাইরাসের লক্ষণ দেখা না গেলেও সতর্কতার অংশ হিসেবে তাদের ১৪ দিন আলাদা করে পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে । এদের বেশির ভাগ রয়েছেন আশকোনার হজ ক্যাম্পে, বাকিরা হাসপাতালে।

By Abraham

Translate »