জানাঅজানা

উলঙ্গ হয়ে জাপানি পুরুষদের প্রার্থনা

Advertisements

এখনও হাড় কাঁপানো শীত সেদেশে। তার মধ্যে উলঙ্গ হয়ে অসংখ্য পুরুষের জমায়েত মন্দিরের সামনে। একটাই প্রার্থনা, দেশের কৃষি জমি যেন উর্বর থাকে। শস্যে শ্যামল হয় ক্ষেত।

এটাই জাপানি রীতি। যুগ যুগ ধরে বছরের দ্বিতীয় মাসের তৃতীয় শনিবার সে দেশে ঘটা করে পালিত হয় ‘নেকেড ফেস্টিভ্যাল’।

এবারও এর ব্যতিক্রম ঘটেনি। যৎসামান্য পোশাক আর মোজা পরে শ্রদ্ধা আর বিশ্বাসের সঙ্গে পালিত হয়েছে সেই উৎসব।

কী হয় সেই উৎসবে? হাদাকা মাটসুরি নামে খ্যাত এই উৎসবে Saidaiji Kannonin মন্দিরে জড়ো হন জাপানি পুরুষেরা। তখন তাদের পরনে কৌপিন আর সাদা মোজা। স্থানীয় সময় বিকেল ৩টার দিকে উৎসব পালনে যোগ দেন সবাই। লাখ লাখ মাথার ভিড়ে গমগম করতে থাকে মন্দির প্রাঙ্গণ। এই ফসল উৎসব আগামী প্রজন্মকে কৃষির প্রতি আকৃষ্ট করার জন্যই।

উৎসবের অংশ হিসাবে, পুরুষরা কয়েক ঘণ্টা মন্দিরের মাঠের চারপাশে দৌড়াদৌড়ি করেন। তারপর জমাট বাঁধা বরফ জলে স্নান করে নিজেকে শুদ্ধ করে মূল মন্দিরের দিকে যান। এরপর মন্দিরের পুরোহিত ১০০টি মন্ত্রপূত লাঠি ছড়িয়ে দেন ভিড়ে মধ্যে মন্দিরের মাঠে। পুরুষেরা ঝাঁপিয়ে পড়েন আসল দুটি লাঠির খোঁজে। এভাবেই দিনের শেষে রক্তাক্ত শরীর নিয়ে শেষ হয় তাঁদের খোঁজ। শেষ হয় নেকেড উৎসবও।

ওকায়ামার পর্যটন বোর্ডের মুখপাত্র মিকো ইটানো জানিয়েছেন, অংশগ্রহণকারী ছাড়াও বিশ্বের বিভিন্ন স্থান থেকে আগত দর্শনার্থীরাও এই অনুষ্ঠানে অংশ নেন। আশা, আগামী প্রজন্ম বিশ্বাস রাখবে এই উৎসবে। ভবিষ্যতেও ধরে রাখবে যুগ যুগ ধরে চলে আসা এই ঐতিহ্যকে।

তথ‌্যসূত্র: ইন্ডিপেন্ডেন্ট, এনডিটিভি