Advertisements

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রুখতে এবার কাগুজে নোট পুড়িয়ে ফেলতে যাচ্ছে চীন। করোনাভাইরাসে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত এলাকায় ব্যবহৃত সব কাগুজে নোট নষ্ট করে ফেলা হবে। চীনের কেন্দ্রীয় ব্যাংক এমনই সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

চীনের কেন্দ্রীয় ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নর ফ্যান ইয়েফেইয়ের বরাত দিয়ে দেশটির সাউথ চায়না মর্নিং পোস্টের খবরে এ কথা বলা হয়েছে।

ফ্যান ইয়েফেই জানিয়েছেন, প্রায় ৬০ হাজার কোটি ইউয়ান নষ্ট করে ফেলার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। ইতিমধ্যেই সব ব্যাংকে এ নির্দেশনা পাঠানো হয়েছে। নির্দেশনা জারি করে বলা হয়েছে, দেশের কোথাও কোনো ব্যাংকে আর কোনো কাগজের নোট গ্রহণ করা হবে না। নতুন নোট বাজারে ছাড়া হবে। আগামী ১৪ দিনের মধ্যে এ প্রক্রিয়া শেষ করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। নতুন নোট বাজারে ছাড়ার আগে তা জীবাণুমুক্ত করা হবে। আপাতত পুরোনো নোট সংগ্রহ করে রাখবে চীনের কেন্দ্রীয় ব্যাংক। বদলে মানুষের হাতে তুলে দেওয়া হবে নতুন নোটের বান্ডিল।

এদিকে চীন সরকারের এ সিদ্ধান্তে করোনাভাইরাসের মধ্যে চরম অর্থসংকট সৃষ্টি হতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। কারণ, চিকিৎসার জন্য করোনায় আক্রান্ত এলাকার বাসিন্দারা যে কাগুজে নোটগুলো ব্যবহার করছিলেন, সেগুলো আর গ্রহণযোগ্য থাকবে না। এককথায়, সেগুলো অকেজো হয়ে পড়বে। এ কারণে একটা সংকট তৈরি হবে।

সংস্পর্শেই ছড়িয়ে পড়ছে কোভিড-১৯
একজনের হাত থেকে মুদ্রা যাচ্ছে অন্যজনের হাতে। তা থেকেও সংক্রমণ ছড়াতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। তাই পুরোনো মুদ্রা, বিশেষত হাসপাতাল ও বাজারে ব্যবহৃত নোটগুলো সংগ্রহ করে ব্যাংকের কোষাগারে রাখা শুরু করেছে চীন। অতিবেগুনি রশ্মি দিয়ে নতুন নোট এবং কয়েনগুলো সম্পূর্ণ জীবাণুমুক্ত করে তবেই বাজারে ছাড়া হবে বলে নিশ্চিত করেছে দেশটির কেন্দ্রীয় ব্যাংক। রাতারাতি ৬০ হাজার কোটি ইউয়ান মূল্যের নোট ছাপিয়ে সাধারণ মানুষের হাতে তুলে দেওয়ার কাজ শুরু হয়েছে। বড় অঙ্কের নোটই বেশি বাতিল করা হয়েছে।

ডেপুটি গভর্নর জানিয়েছেন, অত্যন্ত দ্রুততা ও পেশাদারির সঙ্গে নোট বাতিল এবং নতুন নোট বাজারে আনার পদ্ধতিটি কার্যকর করা হচ্ছে। বিশেষত, যেখান থেকে মূলত করোনাভাইরাস ছড়িয়েছে, সেখানকার পুরোনো নোট সংগ্রহ করে গুদামে রাখা হয়েছে। তবে পুরোনো নোট বাতিলের কারণে সাধারণ মানুষের অর্থাভাব হবে না বলেই নিশ্চিত করেছেন তিনি।

চীনে করোনাভাইরাসের হামলায় মৃত মানুষের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১ হাজার ৭৭৫। ছবি: টুইটার

করোনায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১৭৭৫
চীনে করোনাভাইরাসের হামলায় মৃত মানুষের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১ হাজার ৭৭৫। আজ সোমবার চীনের পক্ষ থেকে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

মরণব্যাধির উৎসস্থল হুবেই প্রদেশে নতুন করে সংক্রমণ ছড়িয়েছে কয়েক শ মানুষের মধ্যে। গত দুদিন নতুন সংক্রমণের কম থাকলেও গতকাল রোববার হঠাৎ বেড়েছে আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা। স্বাস্থ্যকর্মীরা জানিয়েছেন, হুবেই প্রদেশে ১৬ ফেব্রুয়ারি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে ১০০ জনের। নতুন সংক্রমণের ৯০ শতাংশ উহান প্রদেশের বলে জানা গেছে।

হুবেই প্রদেশে আরও কড়া নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে চীন। জরুরি পরিষেবার যানবাহন ছাড়া রাস্তায় অন্য গাড়ি চলাচল নিষিদ্ধ করা হয়েছে। পরবর্তী নির্দেশ না পাওয়া পর্যন্ত সব অফিস বন্ধ রাখতে বলা হয়েছে।

By Abraham

Translate »