Advertisements

‘তাপস আমার জীবনের প্রথম নায়ক। খবরটা শোনার পরেই শূন্যতা অনুভব করছি। যেখানেই থাকুক, ভালো থাকুক। ওর আত্মার শান্তি কামনা করি। সমবেদনা জানাই স্ত্রী আর মেয়েকে।’- এমনই ভারাক্রান্ত শব্দ নিয়ে আক্ষেপের সঙ্গে টুইট করেছে বলিউডের মাধুরী দিক্ষিত।

বলিউড অভিনেত্রী মাধুরী দীক্ষিতের অভিনয় জীবনের প্রথম নায়ক বাংলার ছেলে তাপল পাল। ১৯৮৪ সালে পরিচালক হীরেন নাগ পরিচালনা করেন হিন্দি ছবি অবোধ। তাপসের বিপরীতে সেই ছবিতে নায়িকা ছিলেন মাধুরী দীক্ষিত। সেই অনুযায়ী মাধুরীর প্রথম হিরো তাপস।

হীরেন নাগের সেই ছবিতে তাপস-মাধুরী শঙ্কর সিং-গৌরী। পর্দায় তাঁরা স্বামী-স্ত্রী। যদিও এই ছবি বক্স অফিসে কোনও ম্যাজিক দেখাতে পারেনি। পর্দায় তারপর আর দেখা যায়নি এই জুটিকেও। ৩৬ বছর পর ফের ‘গৌরী’ মাধুরী ফের ‘শঙ্কর’ তাপসের-এর জন্য ব্যাকুল। ছবির গল্প বলছে, শঙ্করের জন্য নাকি দীর্ঘকাল অপেক্ষা করতে হয়েছিল গৌরীকে। তবে সে কাছে পায় স্বামীকে। বাস্তবে মাধুরীর আর দেখা হল না অভিনয় জীবনের প্রথম নায়কের সঙ্গে। সেই আপসোস তিনি জানিয়েছেন টুইটে।

প্রয়াত সাংসদ-অভিনেতার স্ত্রী নন্দিনী জানিয়েছেন, গত দু’বছর ধরে হার্ট এবং স্নায়ুর রোগে ভুগছিলেন তাপস। চিকিৎসার জন্য একাধিকবার হাসপাতালেও ভর্তি হতে হয়েছিল তাকে। চিকিৎসার জন্যই তিনি জানুয়ারিতেও গেছিলেন মুম্বাই। একই সঙ্গে দেখা করেন মেয়ে সোহিনীর সঙ্গেও। ১ ফেব্রুয়ারি ফের তাকে ভর্তি করা হয় মুম্বাইয়ের এক বেসরকারি হাসপাতালে। এই দিন তিনি মুম্বাই হয়ে উড়ে যাচ্ছিলেন আমেরিকায়, চিকিৎসার জন্য। বিমানবন্দরেই অসুস্থ বোধ করায় হাসপাতালে ভর্তি করতে হয় তাকে। ভেন্টিলেশনেও রাখা হয় বলে জানান নন্দিনী। দিন দুই আগে অনেকটা সুস্থ বোধ করায় তাপসকে বের করে আনা হয় ভেন্টিলেশন থেকে। তারপরেই আচমকা মঙ্গলবার ভোর সাড়ে তিনটে নাগাদ হৃদরোগে আক্রান্ত মাত্র ৬১ বছর বয়সে ঘুমের দেশে পাড়ি জমান ‘পথভোলা’ তাপস।

By Abraham

Translate »