Advertisements

বার্সেলোনার এই নতুন স্ট্রাইকার কে?

খেলা ডেস্ক
২২ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ০০:৩৩
আপডেট: ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ০০:৩৭

এই স্ট্রাইকারকেই আনল বার্সেলোনা। ছবি : ব্রাথওয়াইটের টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে নেওয়াএই স্ট্রাইকারকেই আনল বার্সেলোনা। ছবি : ব্রাথওয়াইটের টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে নেওয়াএন্তার খোঁজাখুঁজি শেষে অবশেষে লেগানেসের ড্যানিশ স্ট্রাইকার মার্টিন ব্রাথওয়াইটকে দলে নিয়ে এসেছে বার্সেলোনা। আপাতত সামনের কয়েক মাস লুইস সুয়ারেজের দায়িত্ব পালন করতে হবে তাঁকে

রিচার্লিসন, দুসান তাদিচ, উইলিয়ান হোসে, অ্যানহেল রদ্রিগেজ, চিমি আভিলা, লরেন মোরোন, সেড্রিক বাকাম্বু, রদ্রিগো মোরেনো, লুইস সুয়ারেজ (রিয়াল জারাগোজার কলম্বিয়ান স্ট্রাইকার), লুকাস পেরেজ, মার্টিন ব্রাথওয়াইট।

এক নিশ্বাসে নামগুলো পড়তে থাকুন। দম ফুরিয়ে যেতে পারে, তাও নাম পড়া শেষ হবে না হয়তো। লুইস সুয়ারেজ ও ওসমানে ডেমবেলের চোটে পড়ার পর গত কয়েক দিনে ঠিক এতগুলো স্ট্রাইকারের প্রতি আগ্রহ দেখিয়েছে বার্সেলোনা। শেষমেশ লেগানেসের ড্যানিশ স্ট্রাইকার মার্টিন ব্রাথওয়াইটে এসে থেমেছে তাদের খোঁজ। অন্তত আগামী কয়েক মাসের জন্য লিওনেল মেসি ও আতোয়াঁন গ্রিজমানের সঙ্গে আক্রমণভাগের সঙ্গী হিসেবে দেখা যাবে ২৮ বছর বয়সী এই স্ট্রাইকারকে।

কিন্তু কে এই ব্রাথওয়াইট? প্রশ্ন ওঠাটা অস্বাভাবিক নয়। বার্সেলোনা বিশ্বের অন্যতম সেরা ক্লাব। সেসব খেলোয়াড়দের সঙ্গেই তাঁদের নাম যুক্ত হবে যারা বিশ্বের অন্যতম সেরা, নিদেনপক্ষে সবার পরিচিত। কিন্তু এবার স্ট্রাইকার খোঁজার জন্য বার্সেলোনা যেসব দিকে নজর দিল, একদম পাঁড় ফুটবল ভক্ত না হলে সেসব স্ট্রাইকার সম্পর্কে না জানাই স্বাভাবিক।

নিজেই নিজেকে জিজ্ঞেস করে দেখুন, বর্তমান সময়ে ডেনমার্কের নামকরা খেলোয়াড়দের নাম মনে করে দেখুন। ক্রিশ্চিয়ান এরিকসেনের নাম আসবে, আসবে ক্যাসপার স্মাইকেলের নাম। ইয়ানিক ভেস্টারগার্ড, অ্যান্দ্রেয়াস ক্রিস্টিয়ানসেন, ল্যাসে শোয়েন, টমাস ডেলেনি কিংবা ক্যাসপার ডলবার্গের নামও মাথায় আসবে—নিয়মিত ইউরোপীয় ফুটবলের লিগগুলো অনুসরণ করেন যাঁরা। কয়জন মার্টিন ব্রাথওয়াইটকে মনে রাখবেন?

রাখার কথাও না। মনে রাখার মতো তেমন কিছু করেননি যে তিনি। নিজের দেশের ক্লাব এসবিয়র্গের হয়ে আলো ছড়িয়ে ২ মিলিয়ন ইউরোর বিনিময়ে যোগ দিয়েছিলেন ফরাসি ক্লাব তুলোঁয়। সেখানে উন্নতি করলেন। আগুনে ফর্মের পুরস্কার পেয়েছিলেন ক্লাবের অধিনায়ক হওয়ার মাধ্যমে। ২০১৬-১৭ মৌসুমে ৩৬ ম্যাচ খেলে ১২ গোল ও ৩ অ্যাসিস্টে নজর কাড়লেন সবার। তাঁকে দলে নেওয়ার জন্য ইংলিশ ক্লাবগুলোর মধ্যে কাড়াকাড়ি শুরু হয়ে গেল।

বিশেষ করে প্রিমিয়ার লিগের দুই ক্লাব ব্রাইটন আর বোর্নমাউথ দলে চাইল তাঁকে খুব করে। কিন্তু সবার চোখ কপালে তুলে প্রিমিয়ার লিগ নয়, ব্রাথওয়াইট খেলতে গেলেন ইংল্যান্ডের দ্বিতীয় বিভাগে, মিডলসব্রোয়। সেখানে গিয়ে যেন এক রকম হারিয়েই গেলেন। ৩৬ ম্যাচ খেলে কোনোরকমে ৮ গোল করলেন, ফলাফল, মিডলসব্রো তাঁকে ধারে পাঠিয়ে দিল ফরাসি ক্লাব বোর্দোয়। সেখান থেকে চলে এলেন লেগানেসে। ভাগ্যের ফেরে লেগানেসের এই তারকাই এখন মেসি-গ্রিজমানদের সঙ্গে নিয়মিত খেলবেন।

ব্রাথওয়াইট মূলত একজন স্ট্রাইকার। তবে ডান পায়ের এই খেলোয়াড় খেলতে পারেন লেফট উইঙ্গার হিসেবেও। বাম পা দিয়ে ‘কাট ইন’ করে ডি-বক্সে ঢুকে ডান পায়ের জোরালো শটে গোল করার স্বভাব আছে তাঁর। এসবিয়র্গে যখন ছিলেন, দলের প্রয়োজনে খেলেছেন সেন্ট্রাল মিডফিল্ডার হিসেবেও। অর্থাৎ একটা ব্যাপার নিশ্চিত, বল পায়ে রেখে বেশ স্বাচ্ছন্দ্যেই খেলতে পারেন ব্রাথওয়াইট। ভালো ড্রিবলার হিসেবেও সুনাম আছে তাঁর। ড্রিবলের সঙ্গে গতি দিয়ে প্রতিপক্ষের ডিফেন্ডারদের চিন্তার কারণ হতে পারেন। তবে দলের রক্ষণকাজে সাহায্য করার তেমন ইচ্ছে নেই তাঁর। বল পায়ে ধরে রেখে খেলার ‘পজেশন বেজড’ স্টাইল, অর্থাৎ যে ধরনের ফুটবল খেলে বার্সেলোনা অভ্যস্ত, সে ধরনের খেলায় একটু বেগ পেতে হয় ব্রাথওয়াইটকে।

দেখা যাক, নতুন এই সঙ্গীকে কীভাবে নিজেদের খেলার ধরনের সঙ্গে খাপ খাওয়াতে সাহায্য করেন মেসি-গ্রিজমান!

By Abraham

Translate »