জানাঅজানা

লম্বা হওয়ার গোপন কৌশল

Advertisements
লম্বা ও ছিপছিপে গড়ন কার না পছন্দ। আজকাল লম্বা শারীরিক গঠনের কদর খুবই বেশি। বিয়ের বিজ্ঞাপন থেকে বিমানবালার চাকরিসহ সব ক্ষেত্রেই লম্বা মানুষের চাহিদা বেশি!
কিন্তু সকলেই লম্বা ও সুগঠিত শরীর নিয়ে জন্ম নেন না। কীভাবে প্রাকৃতিক উপায় অনুসরণ করে যে কেউ চাইলে লম্বা হতে পারে নিচে তান টিপস দেয়া হলো। তবে এগুলো রাতারাতি কাজ করবে না। আপনাকে ধৈর্য ধরে অনেক দিন মেনে চলতে হবে। তবেই মিলবে সন্তোষজনক ফল-
৮টি সহজ স্বাভাবিক উপায়ে উচ্চতা বৃদ্ধি:
১. লম্বা হওয়ার জন্য বৃদ্ধি পদ্ধতি সবচেয়ে কার্যকর উপায়। এই পদ্ধতিতে ইনজেকশন দ্বারা মানবদেহে হরমোন বৃদ্ধি করা হয়, কিন্তু এটি সম্পূর্ণ বেআইনি এবং খুবই ব্যয়বহুল।
২. দুধ পান আপনাকে লম্বা হতে সাহায্য করবে কারণ ক্যালসিয়াম আপনার শরীরের হাঁড় এর বৃদ্ধি ঘটায়। আমেরিকায় গরুর খাবারের মধ্যে বিভিন্ন হরমোন ইনজেকশন দেওয়া হয় যার মাধ্যমে হরমোনের মাত্রা বৃদ্ধি হয় এবং সেই প্রকিয়াজাতকরণ দুধ হয় সাধারণ দুধ এর বিকল্প।
৩. নিয়মিত কিছু নির্দিষ্ট ব্যায়াম (ওজন উদ্ধরণ) হরমোন (HGH) বৃদ্ধি করে। এটি বৃদ্ধি সংক্রান্ত হরমোনের মাত্রা আরও উন্নত করার জন্য বহুল পরিচিত এবং পদ্ধতি খুবই কার্যকর। অতিরিক্ত পেশী আপনাকে আরও সাহায্য করবে আকর্ষণীয় চেহারার অধিকারী হতে।
৪. তীব্র sprinting ব্যায়াম মানব বৃদ্ধির হরমোনে একটি বিস্ফোরণ ঘটায়। এছাড়া মানুষের হরমোনকে আরও উন্নত করে। যে কোনও কঠিন শারীরিক ব্যায়াম আপনাকে লম্বা হতে সাহায্য করবে। তবে অবশ্যই সেটা ২১বছর বয়স হওয়ার পর।
৫. Niacin supplementation:  Niacin একটি প্রাকৃতিক ভিটামিন নামক ভিটামিন B3। গবেষণা থেকে জানা যায়, ৫০০ গ্রাম নিয়াসিন নেওয়া মানুষের থেকে সাধারণ মানুষের বৃদ্ধি কম ঘটে।
৬.মানসিক চাপ কমান: স্ট্রেস বা মানসিক চাপ যা হচ্ছে আপনার লম্বা বৃদ্ধি হওয়ার ক্ষেত্রে একটি বাঁধা। যাতে আপনার  হরমোনের মাত্রা কমে যায় এবং করটিসল উৎপাদিত হয়। ভিটামিন C সম্পূরকসমূহ যা করটিসল কমাতে জোর সহায়তা করে।
৮. ঘুম: কমপক্ষে ৮ ঘণ্টা ঘুমানো । এটি সবচেয়ে সহজ এবং অনেক কার্যকরী উপায়। সঠিক এবং সুন্দর ভাবে ঘুমানো আপনার দেহের স্বাভাবিক বৃদ্ধি মাত্রা আরও বাড়িয়ে তোলে।