Advertisements

ভারতের বিতর্কিত নাগরিকত্ব আইনের (সিএএ) সমর্থকদের সঙ্গে বিরোধীদের সংঘর্ষে রাজধানী দিল্লিতে পুলিশসহ সাত জন নিহত হওয়ার পরদিন সকালেও অগ্নিসংযোগ, লুটপাটসহ ব্যাপক সহিংসতা অব্যাহত আছে।

সোমবার নজিরবিহীন সহিংসতায় এক পুলিশসহ সাত জন নিহত হয়, আহত হয় আরও অন্তত ১০০ জন। আহত ৪৮ জনেরও বেশি পুলিশ সদস্যকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এ দিন গভীর রাতে ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ, দিল্লির পুলিশ প্রধান, কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র সচিবসহ অন্যান্য ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করেছেন; জানিয়েছে এনডিটিভি।

সোমবার যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প দিল্লিতে উপস্থিত হওয়ার কয়েক ঘণ্টা আগে উত্তরপূর্ব দিল্লিতে সহিংসতা শুরু হয়। মঙ্গলবার দিনটি বিভিন্ন বৈঠক ও আলোচনায় দিল্লিতেই পার করবেন ট্রাম্প। শহরটিতে তার উপস্থিতি সত্ত্বেও সহিংসতা থামেনি।

এ দিন সকালে উত্তরপূর্ব দিল্লির মৌজপুরসহ কয়েকটি এলাকায় সিএএ সমর্থকদের সঙ্গে বিরোধীদের পাল্টাপাল্টি পাথর নিক্ষেপের ঘটনা ঘটে। মৌজপুরে একটি ইজিবাইক ভাংচুর করে যাত্রীদের মূল্যবান জিনিপত্র লুট করে হামলাকারীরা।

বিভিন্ন এলাকা থেকে বহু জরুরি কল আসার কথা জানিয়েছে দিল্লির দমকল বিভাগ। এমন একটি কলে সাড়া দিতে গিয়ে হামলার শিকার হয়েছেন দমকল কর্মীরা। হামলাকারীরা দমকলের একটি গাড়ি পুড়িয়ে দেয় ও আরেকটি গাড়ি লক্ষ্য করে পাথর নিক্ষেপ করে। এতে তিন দমকল কর্মী আহত হন।

এক বিবৃতিতে দিল্লি পুলিশ পরিস্থিতিকে ‘অত্যন্ত উত্তেজনাকর’ বলে বর্ণনা করেছে। উত্তরপূর্ব দিল্লির বিভিন্ন এলাকা থেকে সহিংসতার কথা জানিয়ে একের পর এক কলা আসছে বলে বিবৃতিতে উল্লেখ করেছে তারা।

By Abraham

Translate »