Advertisements

লিবিয়ায় চলমান সংঘর্ষে তুরস্কের অন্তত ১৬ সেনা নিহত হয়েছে বলে দাবি করেছে দেশটির বিদ্রোহী নেতা খলিফা হাফতারের অনুগত বাহিনী। ত্রিপোলিভিত্তিক আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় সমর্থিত সরকারের প্রতি সমর্থন জানিয়ে তুরস্ক দেশটিতে সেনা পাঠিয়েছে।

হাফতারের অনুগত বাহিনীর একজন মুখপাত্র গতকাল (রোববার) জানিয়েছেন, রাজধানী ত্রিপোলি দখলের লড়াইয়ের সময় মিসরাতা ও আল-ফালাহ শহরে তুরস্কের সেনারা নিহত হয়। তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যেব এরদোগান স্বীকার করেছেন যে, লিবিয়ায় তার দেশের কিছু সেনা নিহত হয়েছে। এরপরই হাফতার বাহিনী এই বিবৃতি দিল।

খলিফা হাফতারের অনুগত বাহিনীর অগ্রযাত্রা

এরদোগান বলেছেন, “লিবিয়ার জাতীয় সরকারের স্বার্থে আমরা সেখানে সেনা পাঠিয়েছি। আমরা লিবিয়ায় লড়াই অব্যাহত রাখব। এরইমধ্যে সেখানে আমাদের কয়েকজন সেনা শহীদ হয়েছেন। অন্যদিকে আমরা হাফতার অনুগত বহু সেনাকে নিষ্ক্রিয় করতে সমর্থ হয়েছি।”

গত শুক্রবার প্রেসিডেন্ট এরদোগান প্রথমবারের মতো লিবিয়ায় সেনা পাঠানোর কথা নিশ্চিত করেন। তিনি জানান, তুরস্কের সেনারা সেখানে লিবিয়ার সেনাদেরকে প্রশিক্ষণ দেয়ার জন্য কাজ করছে। তিনি জানান, সিরিয়ার কথিত ন্যাশনাল আর্মির সদস্যরা লিবিয়ায় রয়েছে। সিরিয়া সংকট শুরুর পর থেকে এরদোগান সিরিয়ার এই  সন্ত্রাসী গোষ্ঠীকে সমর্থন দিয়ে আসছেন।

By Abraham

Translate »