Advertisements

ইউরোপের বিভিন্ন দেশে ছড়িয়ে পড়েছে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস। সবচেয়ে ভয়াবহ অবস্থা ইতালির। দেশটিতে লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা।

এখন পর্যন্ত ইতালিতে ৬৫০ জনের আক্রান্তের খবর পাওয়া গেছে। বৃহস্পতিবার সকালেও এ সংখ্যা ছিল ৪০০। এদিকে দেশটিতে এ ভাইরাসে মারা গেছেন ১২ জন।

ইতালির নাগরিক সুরক্ষা বিভাগের প্রধান অ্যাঞ্জেলো বোরেলি জানিয়েছেন, ইতালিতে ৬৫০ জনের দেহে করোনাভাইরাসের লক্ষণ পাওয়া গেছে।

নতুন পরিসংখ্যান উল্লেখ করে বোরেলি বলেছিলেন, হঠাৎ করে আক্রান্তের সংখ্যা বৃদ্ধির কারণ লম্বার্ডি অঞ্চলের পরিসংখ্যান তাদের জানা ছিল না।

এদিকে ইতালির সরকারি কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, আক্রান্ত এলাকায় প্রায় ৩৫ হাজার মাস্ক পাঠানো হয়েছে।

বিবিসির খবরে বলা হয়েছে, ইউরোপের মধ্যে ইতালিতেই করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব সবচেয়ে মারাত্মক। ইতালির পরিস্থিতি দেখে প্রতিবেশী সব দেশ ইতোমধ্যে সীমান্ত বন্ধ করেছে

অস্ট্রিয়া, ক্রোয়েশিয়া ও সুইজারল্যান্ডেও ছড়াচ্ছে এ ভাইরাস। ফ্রান্স ও জার্মানিতেও করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে।

ব্রিটিশ স্বাস্থ্য পরিকাঠামো বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছিলেন, করোনাভাইরাস ইউরোপে ভয়াবহ পরিস্থিতি তৈরি করতে পারে। খোদ লন্ডন শহর ও ইংল্যান্ডে চার লাখ মানুষ বিপদের মধ্যে রয়েছেন।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) জানায়, চীন থেকে ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাস বিশ্বজুড়ে মহামারির চেহারা নিতে চলেছে। সেই সতর্কতা কতটা ভয়াবহ তার চিত্র এখনও স্পষ্ট নয়।

করোনায় এ পর্যন্ত চীনসহ সারাবিশ্বে ২৮০৪ জন মারা গেছেন। আক্রান্ত হয়েছেন ৮২ হাজার ১৬৬ জন।

By Abraham

Translate »