Advertisements

রাজশাহীতে প্রাইভেট কার গাছের সঙ্গে ধাক্কা খেয়ে দুমড়ে-মুচড়ে সাতজন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন আরও একজন।

গোদাগাড়ী থানার ওসি খাইরুল ইসলাম জানান, শনিবার বেলা সাড়ে ১২টার দিকে উপেজলার কাদিরপুরে রাজশাহী-চাঁপাইনবাবগঞ্জ সড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতদের মধ্যে চারজনের নাম পাওয়া গেছে।

তারা হলেন গোদাগাড়ীর কেল্লাবারইপাড়া এলাকার রমজান আলীর স্ত্রী আছিয়া বেগম (৩৫), তার মেয়ে রাফিয়া (৩), রাজশাহীর মুনাফের মোড় এলাকার ফজলুর রহমানের ছেলে আক্কাস আলী (৪০) ও মেহেরচণ্ডী এলাকার মতিউর রহমানের ছেলে প্রাইভেট কারের চালক মাহবুবুর রহমান (৩৫)।

নিহত অন্য তিনজনের মধ্যে রয়েছেন এক তরুণী ও দুই শিশু। তরুণীর বয়স ২০ থেকে ২২ বছরের মধ্যে হতে পারে আর শিশুদের বয়স ১০ বছর ও  এক বছর হতে পারে বলে পুলিশ জানিয়েছে।

গোদাগাড়ী থানার ওসি খাইরুল ইসলাম বলেন, রাজশাহী থেকে প্রাইভেট কারটি গোদাগাড়ীর দিকে যাচ্ছিল। কাদিরপুরে কারটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে গাছের সঙ্গে ধাক্কা খায়। গাড়িটি দুমড়ে-মুচড়ে গেলে ঘটনাস্থলেই তিনজন নিহত হন।এ সময় শিশুসহ চারজন আহত হলে তাদের রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে আরও তিনজন মারা যান বলে বলে হাসপাতালের উপ-পরিচালক সাইফুল ফেরদৌস জানিয়েছেন।

ওসি খাইরুল বলেন, স্থানীয় লোকজন ও ফায়ার সার্ভিসকর্মীরা গিয়ে আহত চারজনকে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠায়।

পুলিশ তাৎক্ষণিকভাবে নিহতদের নাম-ধাম বলতে পারেনি।

ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের গোদাগাড়ী স্টেশন কর্মকর্তা আতাউর রহমান জানান, দুর্ঘটনার পরপরই তারা ঘটনাস্থলে গিয়েছেন। প্রাইভেট কারের ভেতর থেকে তিনজনের লাশ উদ্ধার করে পুলিশে দিয়েছেন।

হাসপাতালের উপ-পরিচালক সাইফুল ফেরদৌস বলেন, দুর্ঘটনার পর আহত পাঁচজনকে তাদের হাসপাতালে আনা হয়। তাদের মধ্যে দুই শিশু ও একজন নারী মারা যান। অন্য দুইজনকে ভর্তি করে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। তাদের অবস্থাও আশঙ্কাজনক।

By Abraham

Translate »