Advertisements

আফগানিস্তানে সম্প্রতি অনুষ্ঠিত নির্বাচনে নিজেদের জয়ী ঘোষণা পর এবার একই দিনে পৃথক ভাবে শপথ গ্রহণ করে নজির গড়েছেন দেশটির বর্তমান প্রেসিডেন্ট আশরাফ গনি ও তার প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী আব্দুল্লাহ আব্দুল্লাহ।

দুই নেতার মধ্যে দ্বন্দ্ব নিরসনে যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যস্থতা ব্যর্থ হওয়ার পর সোমবার দেশটিতে এ নজিরবিহীন ঘটনা ঘটলো।

রাজধানী কাবুলে অবস্থিত প্রেসিডেন্সিয়াল প্যালেসে শপথ নেন আশরাফ গনি। তার শপথ অনুষ্ঠানে মার্কিন সরকার ও সামরিক বাহিনীর প্রতিনিধিদের পাশাপাশি ন্যাটোর সেনা কমান্ডাররাও উপস্থিত ছিলেন।

ওদিকে তার প্রতিদ্বন্দ্বী আবদুল্লাহ আবদুল্লাহও কাবুলে বিশাল আয়োজনের মধ্য দিয়ে প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ বাক্য পাঠ করেন। তার পক্ষেও দেশটির প্রভাশালী অনেক রাজনীতিবিদদের সমর্থন রয়েছে।

দুই নেতার মধ্যে দ্বন্দ্বের ঘটনা এই প্রথম নয়, এর আগেও তাদের মধ্যে পারস্পরিক দ্বন্দ্বের কারণে আফগানিস্তানে অচলাবস্থা সৃষ্টি হয়েছিল। কিন্তু শেষ পর্যন্ত তারা সমঝোতায় পৌঁছাতে সক্ষম হয়েছিলেন।

তবে একই পদে দু’জন আলাদাভাবে শপথ গ্রহণের মধ্য দিয়ে আফগানিস্তান নতুন করে রাজনৈতিক সংকটে পড়তে যাচ্ছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রায় ৫ মাস পর গত ১৮ ফেব্রুয়ারি আশরাফ গনিকে বিজয়ী ঘোষণা করেছে দেশটির নির্বাচন কমিশন। নির্বাচনে তিনি ৫০ দশমিক ৬৪ শতাংশ ভোট পেয়েছেন এবং তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আফগানিস্তানের নির্বাহী প্রধান আব্দুল্লাহ আব্দুল্লাহ পেয়েছিলেন ৩৯ দশমিক ৫২ শতাংশ ভোট।

নির্বাচন কমিশনের ঘোষিত ফলাফল ফলাফলকে প্রত্যাখ্যান করেছেন আব্দুল্লাহ আবুল্লাহ। এর আগের সরকারে উভয়েই পদধারী ছিলেন।

সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে তালেবানের চুক্তির পর যখন দেশটিতে দীর্ঘ কয়েক বছরের সহিংসতার অবসান ঘটিয়ে শান্তির প্রত্যাশা করা হচ্ছে তখন এই পাল্টাপাল্টি অভিষেক অনুষ্ঠান দেশটিকে নতুন অস্থিরতার দিকে ঠেলে দেবে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

গত সেপ্টেম্বর মাসের শেষ দিকে অনুষ্ঠিত প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে অপর দুই প্রার্থী গুলবুদ্দিন হেকমতিয়ার ও রহমতুল্লাহ নাবিল যথাক্রমে চার ও দুই শতাংশ ভোট পেয়েছেন।

By Abraham

Translate »