Advertisements

নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের (সিএএ) সমর্থক-বিরোধীদের মধ্যে ভারতের রাজধানী দিল্লিতে সংঘর্ষের ঘটনায় অবশেষে দুঃখ প্রকাশ করেছেন দেশটির কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। গতকাল বুধবার বিকেলে ওই ইস্যুতে সংসদের নিম্নকক্ষ লোকসভায় আলোচনার সময় বিরোধীদের সমালোচনার জবাব দিতে গিয়ে তিনি ‘দুঃখপ্রকাশ’ করেন।

বিরোধীরা দিল্লির সহিংসতায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর বিরুদ্ধে ব্যর্থতার অভিযোগ তুলে তার পদত্যাগ দাবি করলেও তিনি পুলিশি তৎপরতায় দ্রুত দাঙ্গা নিয়ন্ত্রণ করা গেছে বলে দাবি করেন। তার সাফাইতে সন্তুষ্ট না হয়ে প্রধান বিরোধীদল কংগ্রেসের এমপি’রা লোকসভা থেকে ওয়াকআউট করেন।
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘উত্তরপ্রদেশ থেকে তিনশ’র বেশি বহিরাগত এসে উত্তর-পূর্ব দিল্লিতে সহিংসতা ছড়িয়েছে। কিন্তু যারাই জড়িত থাকুক, কাউকে ছাড়া হবে না। বৈজ্ঞানিক পদ্ধতিতে সোশ্যাল মিডিয়া ও সিসিটিভি’র ফুটেজ পরীক্ষা করে জড়িতদের ধরা হবে।’ অগ্নিসংযোগকারীদের চিহ্নিত করে তাদের সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করে ক্ষতিপূরণ করা হবে বলেও তিনি জানান।

তিনি দিল্লির সহিংস ঘটনাকে একটি ‘ষড়যন্ত্র’ বলে অভিহিত করে এ ব্যাপারে ষড়যন্ত্রের মামলা দায়ের হয়েছে বলে জানান। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এ প্রসঙ্গে বলেন, ‘উপযুক্ত প্রমাণের ভিত্তিতে আমরা সহিংসতার তদন্ত চালাচ্ছি। বিভিন্ন গোষ্ঠীর সঙ্গে আমরা শান্তি বৈঠক করেছি। গোটা ঘটনার পিছনে পূর্ব-পরিকল্পিত ষড়যন্ত্র রয়েছে। সে কারণে আমরা ষড়যন্ত্রের অভিযোগে এফআইআর দায়ের করেছি। যারা সহিংসতায় জড়িত, তাদের কেউই আইনের আওতা থেকে রেহাই পাবে না। সিসিটিভি ও ভিডিও ফুটেজ খতিয়ে দেখা হচ্ছে। কমপক্ষে ৭০০ এফআইআর দায়ের করা হয়েছে। এ পর্যন্ত ১১০০ জনকে চিহ্নিত করা হয়েছে। এরমধ্যে কমপক্ষে ৩০০ জন উত্তরপ্রদেশ থেকে এসেছিল।’

সূত্র : পার্সটুডে।

By Abraham

Translate »