Advertisements

আরেকটি অবিশ্বাস্য প্রত্যাবর্তনের ইতিহাস লেখা হলো না লিভারপুলের। অতিরিক্ত সময়ে তাদের জালে তিনবার বল পাঠিয়ে নাটকীয় জয় পেলো অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ। ইউরোপ চ্যাম্পিয়নদের বিদায় করে কোয়ার্টার ফাইনালে স্প্যানিশ ক্লাবটি। ফিরতি লেগের রোমাঞ্চকর ম্যাচে ৩-২ গোলে জিতেছে আতলেতিকো। প্রথম লেগে ১-০ গোলে জেতা স্প্যানিশ দলটি ৪-২ গোলের অগ্রগামিতায় গেছে পরের ধাপে। ঘরের মাঠে ৪৩ ম্যাচ পর এটাই লিভারপুলের প্রথম হার।

এদিন একের পর এক আক্রমণ চালিয়ে যায় স্বাগতিকরা। ৪৩তম মিনিটে আসে সাফল্য। অক্সলেইড-চেম্বারলেইনের ক্রসে অরক্ষিত জর্জিনিয়ো ভেইনালডাম হেড জড়ায় জালে। এগিয়ে যায় লিভারপুল। ৯৪তম মিনিটে ব্যবধান বাড়ান ফিরমিনো। ভেইনালডামের ক্রসে ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ডের হেড পোস্টে লেগে ফিরে। ফিরতি বলে খুব কাছ থেকে জাল খুঁজে নেন তিনি।
এর তিন মিনিট পরেই ব্যবধান কমায় আতলেতিকো। বিপদমুক্ত করতে গিয়ে বিপদ ডেকে আনেন লিভারপুল কিপার। তার শট থেকে বল ফেলিক্স খুঁজে নেন মার্কোস লরেন্তেকে। কিছুটা এগিয়ে নিখুঁত ফিনিশিংয়ে জাল খুঁজে নেন এই বদলি খেলোয়াড়।

ম্যাচে যদিও তখনও পিছিয়ে সফরকারীরা। প্রতিপক্ষের মাঠে গোল করায় কার্যত তখন এগিয়ে আতলেতিকো। তখনও আর এক গোল পেলেই শেষ আটে যেত গত আসরের চ্যাম্পিয়নরা। অতিরিক্ত সময়ের প্রথমার্ধের যোগ করা সময় আবার জালে বল পাঠিয়ে লিভারপুলের কাজটা অনেক কঠিন করে তোলেন লরেন্তে। ম্যাচে আসে ২-২ সমতা। ম্যাচের শেষ সময়ে প্রতি আক্রমণ থেকে বল পেয়ে কিছুটা এগিয়ে কোনাকুনি শটে জাল খুঁজে নেন মোরাতা। তিন বছরের মধ্যে অ্যানফিল্ডে প্রথম হারের তেতো স্বাদ পায় লিভারপুল।

By Abraham

Translate »