Advertisements

ফাভিপ্রাভির (Favipiravir) নামের এ ওষুধকে  টি-৭০৫ বা আভিজেনও বলা হয়। ওষুধটির রাসায়নিক সূত্র C5H4FN3O2 বলে জানা গেছে। আরএনএ ভাইরাসের বিরুদ্ধে ব্যবহারের জন্য জাপানের তোয়ামা কেমিক্যাল কোম্পানি এটি তৈরি করেছে। ২০১৪ সালে চিকিৎসার জন্য এটি ব্যবহারের অনুমতি দিয়েছে জাপান।

চীনের জৈবপ্রযুক্তি উন্নয়ন সংক্রান্ত জাতীয় কেন্দ্র বা সিএনসিবিডি’র পরিচালক ঝাং সিনমিন বেইজিংয়ে আজ(মঙ্গলবার) জানান, এটি কোভিড-১৯’এর বিরুদ্ধে প্রয়োগ করে সুফল পাওয়া গেছে। সিএনসিবিডি চীনের বিজ্ঞান এবং প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের আওতাভুক্ত হওয়ায় ঝাং’এর ঘোষণাকে গুরুত্বপূর্ণ হিসেবে গণ্য করা হচ্ছে।

কোভিড-১৯’এ আক্রান্ত রোগীর চিকিৎসার জন্য প্রমিত বা মান সম্পন্ন ওষুধ এখনও পাওয়া যায় নি

কোভিড-১৯’এ আক্রান্ত রোগীর চিকিৎসার জন্য প্রমিত বা মান সম্পন্ন ওষুধ এখনও পাওয়া যায় নি। চীনসহ অন্যান্য অনেক দেশে করোনায় আক্রান্ত রোগীর চিকিৎসার জন্য এইচআইভিসহ ইবোলার চিকিৎসার ব্যবহৃত ওষুধ পরীক্ষামূলক ভাবে ব্যবহার করা হচ্ছে।

অবশ্য, খবরে কোনও ওষুধকে সুফলদায়ক হিসেবে উল্লেখ করার ভিত্তিতে তা কখনও কোনও রোগী যেন নিজে প্রয়োগ না করেন। এতে জীবন-মরণ পরিস্থিতির সৃষ্টি হতে পারে। কেবলমাত্র বিজ্ঞ চিকিৎসকই ওষুধ ব্যবহারের ব্যবস্থাপত্র বা পরামর্শ দিতে পারেন – এ কথা কখনও ভুলে যাওয়া ঠিক হবে না।

By Abraham

Translate »