Advertisements

করোনাভাইরাস সংক্রমণ ঠেকাতে সঙ্গরোধ করতে ও সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে পরামর্শ দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা, যা কারাগারে পালন অসম্ভব।

তবে এবার কারাগারে করোনা সংক্রমণ এড়াতে ভিড় কমানোর উদ্যোগ নিতে যাচ্ছে ভারত। চলতি সপ্তাহেই দেশটির বিভিন্ন কারাগারে থাকা বন্দিদের মুক্তি দিতে নির্দেশনা জারি করেছেন ভারতে সর্বোচ্চ আদালত। সেই নির্দেশনা মেনে তিন হাজারের বেশি বন্দিকে সাময়িক মুক্তি দিতে যাচ্ছে পশ্চিমবঙ্গ।

ভারতের সুপ্রিমকোর্ট ও কারা সূত্রের বরাত দিয়ে আনন্দবাজার পত্রিকা এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

আনন্দবাজার জানিয়েছে, ভারতের সুপ্রিমকোর্টের প্রধান বিচারপতি শরদ বোবদের নেতৃত্বে তিন সদস্যের ডিভিশন বেঞ্চ জামিনে ও প্যারোলে কিছু বন্দিকে মুক্তির নির্দেশ দিয়েছেন।

আর সেই নির্দেশ মেনে শুক্রবার কলকাতার কারা কর্তৃপক্ষের কাছে ১০১৭ জন দণ্ডিত ও ২০৫৯ জন বিচারাধীন বন্দিকে যথাক্রমে মুক্তি দেয়ার সুপারিশ করেছেন কলকাতা হাইকোর্ট। জানা গেছে, চলমান করোনা পরিস্থিতিতে তিন মাসের জন্য মুক্তি পেতে পারেন এসব বন্দি।

তবে মুক্তির তালিকায় স্থান পাবেন না নারী ও শিশু যৌন হেনস্তা, রাষ্ট্রবিরোধী দাঙ্গা, জালনোট, শিশু অপহরণ, দুর্নীতি, মাদক পাচারের অভিযোগে দণ্ডিতরা। এ তালিকায় থাকবেন না অভারতীয় বন্দিরাও।

এ বিষয়ে ভারতের সুপ্রিমকোর্টের প্রধান বিচারপতির বেঞ্চ জানিয়েছেন, বিচারাধীন বন্দিদের অন্তর্বর্তী জামিনের ক্ষেত্রে একাধিক শর্ত থাকবে। সাত বছর বা তার থেকে কম সময়ের কারাদণ্ডপ্রাপ্ত বন্দি এবং ওই একই সাজা হতে পারে এমন মামলায় বিচারাধীন বন্দিদের মুক্তির সুযোগ দেয়া যেতে পারে।

দমদম সেন্ট্রাল জেল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, প্যারোল ও অন্তর্বর্তী জামিনের ক্ষেত্রে জেল কর্তৃপক্ষকে ডিস্ট্রিক্ট লিগ্যাল সার্ভিসেস অথিরিটি (ডালসা) সাহায্য করবে।

প্রসঙ্গত ভারতে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ১০২৪ জন। সোমবার ৬টি রাজ্যে একজন করে ৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ পর্যন্ত ভারতে করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা ২৭ জন। করোনার বিস্তার রুখতে পুরো ভারতে চলছে লকডাউন। নির্দেশ অমান্য করলেই ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিন!

By Abraham

Translate »