Advertisements

পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন করোনাভাইরাসের প্রাদূর্ভাবের কারণে উদ্ভূত পরিস্থিতিতে দুর্দশাগ্রস্ত প্রবাসী বাংলাদেশিদের খাদ্য সহায়তা দেওয়ার পাশাপাশি পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে তারা যেন আগের চাকরি ফিরে পায় সেজন্য মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোতে বাংলাদেশের রাষ্ট্র্রদূতদের নির্দেশ দিয়েছেন।

সোমবার মধ্যপ্রাচ্যের ১১টি দেশের রাষ্ট্রদূত ও মিশনপ্রধানদের সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সে তিনি এ নির্দেশ দেন। সহায়তা প্রদানের পাশাপাশি প্রবাসী শ্রমিকেরা যেন পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে পূর্বের চাকরিতে পুর্নবহাল হতে পারে সে জন্য সব ধরনের কূটনৈতিক তৎপরতা গ্রহণের নির্দেশনা দেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ. কে. আব্দুল মোমেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সে সৌদি আরব, কাতার, কুয়েত, জর্ডান, লেবানন, ইরাক, ইরান, লিবিয়া, সংযুক্ত আরব আমিরাত, বাহরাইন ও ওমানের রাষ্ট্রদূত ও মিশনপ্রধানেরা অংশ নেন।

জনস্বাস্থ্যের বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে কারাবন্দীদের মুক্তি, অবৈধ অভিবাসীদের ফেরত পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে মধ্যপ্রাচ্যের বেশ কয়েকটি দেশ। এ ছাড়া তেলের দাম ঋণাত্মক হয়ে পড়ায় তেলসমৃদ্ধ দেশগুলো অর্থনৈতিকভাবে এক সংকটের দিকে যাচ্ছে। এই পরিস্থিতিতে মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলো থেকে বাংলাদেশের কর্মীদের ফেরত আসার খবর জানাচ্ছে দেশি-বিদেশি গণমাধ্যম।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোতে বাংলাদেশের শীর্ষ কূটনীতিকদের বলেন, উদ্ভূত পরিস্থিতিতে প্রবাসী শ্রমিকদের কেউ যদি ফেরত আসে, তারা যেন তাদের ন্যায্য বেতন ও ভাতা পেতে পারে সে বিষয়ে প্রযোজনীয় সহযোগিতা ও কূটনৈতিক তৎপরতা অব্যাহত রাখতে হবে।

আব্দুল মোমেন বলেন, ‘আমরা প্রবাসীদের অগ্রাধিকার ভিত্তিতে সেবা দেব।’ তিনি প্রবাসী বাংলাদেশীদেরকেও দুর্দশাগ্রস্ত প্রবাসীদের পাশে দাঁড়ানোর আহবান জানান। এ সময় তিনি সকল প্রবাসীকে করোনা স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার আহবান জানান।

ভিডিও কনফারেন্সে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম, পররাষ্ট্রসচিব মাসুদ বিন মোমেন অংশ নেন।

By Abraham

Translate »