Advertisements

বেসামরিক নাগরিকেরা যাতে তিন বছরের জন্য সেনাবাহিনীতে যোগ দিতে পারেন সে পরিকল্পনা করছে ভারত। এর অংশ হিসেবে বিভিন্ন পেশার তরুণেরা বাহিনীর কর্মকর্তা থেকে শুরু করে বিভিন্ন পদে যোগ দিতে পারবেন। লজিস্টিক থেকে ফ্রন্ট লাইন- সব ক্ষেত্রেই কাজ করতে পারবেন তরুণরা।

বৃহস্পতিবার এনডিটিভি জানিয়েছে, খুব শিগগির এমন একটি চূড়ান্ত প্রস্তাব উত্থাপন করতে পারে সেনাবাহিনী। এ ছাড়া আধাসামরিক বাহিনী ও কেন্দ্রীয় পুলিশ ফোর্সের সদস্যদেরও সাত বছরের জন্য সেনাবাহিনীতে নিয়োগের পরিকল্পনা করা হয়েছে।

সামরিক বাহিনীতে বেসামরিক খাতে কাজ করা ব্যক্তিদের অংশগ্রহণকে ‘গেম চেঞ্জিং’ পরিকল্পনা হিসেবে দেখছেন অনেকে। সেনাবাহিনীর মুখপাত্র কর্নেল আমান আনন্দ জানিয়েছেন, প্রস্তাবটি পাস হলে তরুণ বেসামরিকদের মধ্য থেকে প্রাথমিকভাবে ১০০ জনকে অফিসার ও এক হাজার জনকে জওয়ান হিসেবে নিযুক্ত করা হবে।

এই প্রকল্পটির নাম রাখা হয়েছে ‘ট্যুর অব ডিউটি’। বয়স ও শারীরিক সক্ষমতা এই প্রকল্পে নিয়োগের জন্য প্রধান বিবেচ্য হবে। প্রকল্পটি নিয়ে বিস্তারিত আলাপ-আলোচনা চলছে বলে ভারতীয় সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

তিন বছরের মেয়াদ শেষে কোনো পেনশন দেওয়া হবে না। তবে তাদের জন্য থোক বরাদ্দ দেওয়া হবে। লড়াইয়ে কেউ নিহত হলে সেনাবাহিনীর অন্য সদস্যদের মতোই সব সুযোগ সুবিধা পাবে পরিবার।

বিশ্লেষকদের মতে, ক্রমে বেড়ে চলা পেনশনসহ অবসর পরবর্তী ভাতার বোঝা কমাতে চাচ্ছে ভারতের সেনাবাহিনী। তাই ইসরায়েলের মতো বেসামরিক নাগরিকদের সেনাবাহিনীতে সাময়িকভাবে কাজের সুযোগ করে দিতে চাচ্ছে ভারত। ইসরায়েলে ১৮ বছরের ঊর্ধ্বে সব নাগরিককেই বাধ্যতামূলকভাবে সেনাবাহিনীতে একটা নির্দিষ্ট সময় কাজ করতে হয়

By Abraham

Translate »