Advertisements

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধ ও পরিস্থিতি উন্নয়নের লক্ষ্যে আদালতে ৩০ মে পর্যন্ত ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। এ হিসাবে আদালতে ছুটি বাড়ল। তবে এই সময়ে শারীরিক উপস্থিতি ছাড়া তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহার করে ভার্চ্যুয়াল উপস্থিতির মাধ্যমে শুধু জামিন শুনানি করতে অধস্তন আদালতের প্রতি নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের আদেশক্রমে শনিবার সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেল মো. আলী আকবর স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানা গেছে।

রেজিস্ট্রার জেনারেল স্বাক্ষরিত অপর এক বিজ্ঞপ্তিতে ছুটির সময় সুপ্রিম কোর্টের উভয় বিভাগ ও অধস্তন আদালতে কর্মরত সব কর্মকর্তা-কর্মচারীকে নিজ নিজ কর্মস্থল ত্যাগ না করার জন্য নির্দেশক্রমে অনুরোধ করা হয়েছে।

সুপ্রিম কোর্টের মুখপাত্র মোহাম্মদ সাইফুর রহমান বলেন, করোনাভাইরাসের সংক্রমণে উদ্ভূত পরিস্থিতিতে গত ২৯ মার্চ থেকে সরকার ঘোষিত সাধারণ ছুটি আদালতেও চলছে। এর ধারাবাহিকতায় ছুটির মেয়াদ ৩০ মে পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে। ১১ মে থেকে ভার্চ্যুয়াল আদালতের কার্যক্রম শুরু হয়। ছুটিকালীন ভার্চ্যুয়াল উপস্থিতিতে অধস্তন আদালতে জামিন-সংক্রান্ত বিষয়ে শুনানি অব্যাহত থাকবে। এ ছাড়া প্রধান বিচারপতির গঠন করে দেওয়া হাইকোর্টের পৃথক চারটি বেঞ্চ ও চেম্বার কোর্ট বসবেন।

By Abraham

Translate »