Advertisements

নতুন করোনাভাইরাসের উৎপত্তি প্রাকৃতিকভাবে নাকি কোনো গবেষণাগার থেকে এটি ছড়িয়ে পড়েছে সে সন্দেহ দূর করতে বিষয়টি তদন্ত করে দেখার জোরাল আহ্বানের মুখে এবার চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং তাতে সমর্থন জানালেন।

তিনি বলেন, ভাইরাসটি নিয়ন্ত্রণে চলে এলে পরে বিষয়টি সামগ্রিকভাবে খতিয়ে দেখা যেতে পারে। এ ধরনের তদন্ত অবশ্যই ‘বস্তুনিষ্ঠ এবং নিরপেক্ষভাবে’ হতে হবে।

সোমবার ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার গভার্নিং বডি ‘ওয়ার্ল্ড হেলথ অ্যাসেম্বলির’ (ডব্লিউএইচএ) বৈঠকের উদ্বোধনী বক্তব্যে একথা বলেন চীনের প্রেসিডেন্ট শি।

করোনাভাইরাসের উৎপত্তির বিষয়টি তদন্ত করে দেখার মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্পের আহ্বানে একজোট হয়েছে আরো ১শ’ টির বেশি দেশ।

করোনাভাইরাস কোথা থেকে এল, তা তদন্তে যৌথভাবে খসড়া প্রস্তাবনা এনেছে অস্ট্রেলিয়া এবং ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ)।  তাতে সমর্থন দিয়েছে জাপান, কানাডা, যুক্তরাজ্য, দক্ষিণ কোরিয়া, ব্রাজিল এবং ভারত-সহ আরো বহু দেশ।

এ প্রস্তাবনায় সুনির্দিষ্টভাবে চীনের নাম উল্লেখ করা হয়নি। তবে যুক্তরাষ্ট্রের মতো দেশগুলো করোনাভাইরাস নিয়ে তথ্য লুকোচাপা করার জন্য বেইজিংয়ের বিরুদ্ধে অভিযোগ করে আসছে। করোনাভাইরাস বিশ্বব্যাপী ৩ লাখেরও বেশি মানুষের প্রাণ কেড়েছে।

চীন তাদের বিরুদ্ধে ওঠা সব অভিযোগ এবং ভাইরাসের উৎপত্তির বিষয়টি খতিয়ে দেখার উদ্যোগ চীনকে দোষারোপ করারই চেষ্টা বলে অভিযোগ করে এসেছে। বিরোধিতা করে এসেছে যুক্তরাষ্ট্র এবং অস্ট্রেলিয়ার তদন্তের আহ্ববানেরও। এবার দেশটি সে অবস্থান থেকে সরে এল।

সোমবার জেনেভায় ওয়ার্ল্ড হেলথ অ্যাসেম্বলির বার্ষিক বৈঠকে চীনের প্রেসিডেন্ট শি বলেন, ২০১৯ সালের শেষে হুবেই প্রদেশে শুরু হওয়া করোনাভাইরাস নিয়ে চীন খোলামেলা ছিল এবং স্বচ্ছতা বজায় রেখেছে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) নেতৃত্বে বিষয়টির আন্তর্জাতিক তদন্তও সমর্থন করে তার দেশ।

By Abraham

Translate »