Advertisements

আবহাওয়া অধিদপ্তর বুধবার সকালে ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেত ঘোষণার পরপরই বদলে গেছে দ্বীপজেলা ভোলার আবহাওয়া পরিস্থিতি। মঙ্গলবার রাতে গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি ও মৃদু বাতাস থাকলেও বুধবার সকাল ৭টা থেকে দমকা হওয়া বইতে শুরু করেছে। উত্তাল হয়ে উঠেছে মেঘনা-তেঁতুলিয়া নদীর পানি, বেড়েছে ঢেউ। এতে উৎকণ্ঠা বেড়েছে নদীপাড়ের মানুষের। তবে বৃষ্টি হচ্ছে না।

এদিকে জেলা প্রশাসকের কন্ট্রোলরুম থেকে জানানো হয়েছে, মঙ্গলবার রাতে জেলার বিচ্ছিন্ন চরাঞ্চল ও সাগর মোহনার ঢালচর,, কুকরী মুকরী ও মনপুরার প্রায় আড়াই লাখ মানুষ নিরাপদ আশ্রয়কেন্দ্রে এসেছে। স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, স্বেচ্ছাসেবী ও প্রশাসন ঝুঁকিপূর্ণ এলাকার মানুষদের নিরাপদে আনার কাজ করছে। প্রস্তুত রাখা হয়েছে ১ হাজার ১০৪টি আশ্রয়কেন্দ্র।

এছাড়া জরুরি অবস্থা মোকাবিলায় ২০০ মেট্রিক টন চাল, নগদ ৭ লাখ টাকা ৩ হাজার প্যাকেট শুকনো খাবার মজুদ রাখা হয়েছে বলেও কন্ট্রোলরুম থেকে জানানো হয়েছে।

এদিকে স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, এখনও নদীর পাড় চরাঞ্চলের কয়েক লাখ মানুষ ঘূর্ণিঝড়ের ঝুঁকিতে রয়েছে।

By Abraham

Translate »