Advertisements

করোনাভাইরাস মহামারীর মধ্যে কম যাত্রী তুলতে হবে বলে মালিকদের ক্ষতি পোষাতে আন্তঃজেলা ও দূরপাল্লা এবং নগর পরিবহনের বাস ও মিনিবাসের ভাড়া ৬০ শতাংশ বাড়ানোর সিদ্ধান্ত দিয়েছে সরকার।

বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষ-বিআরটিএ বাসের ভাড়া ৮০ শতাংশ বাড়ানোর সুপারিশ করলেও তা নিয়ে আপত্তি করেছিল ভোক্তা ও নাগরিক অধিকার সংগঠনগুলো।

শেষ পর্যন্ত ভাড়া ৬০ শতাংশ বাড়িয়ে সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগ রোববার প্রজ্ঞাপন জারি করেছে, যা সোমবার থেকেই কার্যকর হচ্ছে।

কোভিড-১৯ এর বিস্তার রোধে ৬৬ দিনের লকডাউন শেষে রোববার থেকে সারাদেশে ট্রেন ও লঞ্চ চলাচল শুরু হচ্ছে। তবে ভাড়া বাড়ানোর সিদ্ধান্তের অপেক্ষা এবং যানবাহন মেরামতের কারণে দূরপাল্লার বাস-মিনিবাস চলাচল শুরু হওয়ার কথা সোমবার থেকেই।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, “কোভিড-১৯ এর বিস্তার রোধে শর্তসাপেক্ষে সীমিত পরিসরে নির্দিষ্ট সংখ্যাক যাত্রী নিয়ে স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত করে আন্তঃজেলা ও দূরপাল্লার চলাচলকারী (ঢাকা মহানগর ও এর পাশ্ববর্তী এলাকা এবং চট্টগ্রাম মহানগর) বাস ও মিনিবাসের ভাড়া পুনঃনির্ধারণ করা হল।

২০১৬ সালের মে মাসের প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী আন্তঃজেলা ও দূরপাল্লার চলাচলকারী বাস ও মিনিবাসের প্রতি কিলোমিটারের সর্বোচ্চ ভাড়া ছিল এক টাকা ৪২ পয়সা। ৬০ শতাংশ বাড়ায় তা ২ টাকা ২৭ পয়সা হচ্ছে।

ঢাকা মহানগরীতে বাস ও মিনিবাসের চলাচলের ক্ষেত্রে ২০১৬ সালের প্রজ্ঞাপনে সর্বোচ্চ ভাড়া নির্ধারণ করা ছিল এক টাকা ৭০ পয়সা এবং চট্টগ্রামে ও এক টাকা ৬০ পয়সা। ৬০ শতাংশ বাড়ায় এখন তা যথাক্রমে ২ টাকা ৭২ পয়সা এবং ২ টাকা ৫৬ পয়সা হচ্ছে।

এছাড়া ঢাকা ট্রান্সপোর্ট কোঅর্ডিনেশন অথরিটির (ডিটিসিএ) আওতাধীন জেলার (নারায়ণগঞ্জ, মুন্সিগঞ্জ, নরসিংদী, গাজীপুর, মানিকগঞ্জ ও ঢাকা জেলা) অভ্যন্তরে চলাচলকারী বাস ও মিনিবাসের ভাড়া আগে ছিল প্রতি কিলোমিটারে এক টাকা ৬০ পয়সা। এখন তা ৬০ শতাংশ বেড়ে ২ টাকা ৫৬ পয়সা হচ্ছে।

By Abraham

Translate »