Advertisements

স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো) বিলুপ্ত করে ‘বাংলাদেশ পানিসম্পদ অধিদপ্তর’-এর রূপান্তরিত করতে যাচ্ছে সরকার। এজন্য ‘বাংলাদেশ পানিসম্পদ অধিদপ্তর আইন-২০২০’ নামে প্রণয়ন করা হচ্ছে নতুন আইন।  খসড়া আইনে প্রস্তাবিত ক্যাডার নিয়ে এরই মধ্যে বোর্ডের কর্মকর্তাদের মধ্যে মতবিরোধের কারণে জটিলতা সৃষ্টি হয়েছে।  আর এই জটিলতা নিরসনে জরুরি ভিত্তিতে বুধবার (১৬ সেপ্টেম্বর) সংশ্লিষ্টরা বৈঠকে বসছেন।

সংশ্লিষ্টসূত্রে জানা গেছে,  পাউবোতে প্রথম শ্রেণির কর্মকর্তা বা নবম গ্রেডে দুভাবে নিয়োগ হয়।  একটি সহকারী প্রকৌশলী পদে, অন্যটি সহকারী পরিচালক পদে। পদের সংখ্যা বেশি হওয়ায় (৪৬৩ পদ) বোর্ডে সহকারী প্রকৌশলীরা শক্ত অবস্থানে রয়েছেন। অন্যদিকে, সহকারী পরিচালক বা (সাধারণ পেশা) পদের সংখ্যা কম থাকায় (২০৯) তাদের অবস্থান দুর্বল।  জটিলতা দেখা দিয়েছে খসড়া ‘বাংলাদেশ পানিসম্পদ অধিদপ্তর আইনের ২৪-এর-ঘ’ ধারা নিয়ে।

এতে বলা হয়েছে, পানি উন্নয়ন বোর্ডে প্রথম শ্রেণির কর্মকর্তা হিসেবে সহকারী প্রকৌশলী পদে যারা নিয়োগ পেয়েছেন, তারা অধিদপ্তরে পানিসম্পদ প্রকৌশলী হিসেবে সাবক্যাডারের সদস্য হবেন।  তবে, সহকারী পরিচালকদের বিষয়ে সুস্পষ্ট কিছু বলা নেই।  ফলে বোর্ডে সহকারী পরিচালক পদে কর্মরতরা আশঙ্কা করছেন, পাউবো বিলুপ্ত হলে তাদের পদ ব্লকড হয়ে যেতে পারে।  ভবিষ্যতে তাদের পদোন্নতির সুযোগ থাকবে না।  আর সেই আশঙ্কা থেকেই তারা বিষয়টির উল্লেখ করে পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ে অভিযোগ জানিয়েছেন।

মন্ত্রণালয়ের প্রশাসন অনুবিভাগের অতিরিক্ত সচিব রোকন উদ দৌলা বলেন, ‘বিষয়টি চলমান প্রক্রিয়া।  যেকোনো বিষয়ে অভিমত থাকবে, পরিবর্তন-পরিবর্ধন হবে।  তবে, আশা করছি, দ্রুত পুরো প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়ে যাবে।’

By Abraham

Leave a Reply

Translate »