Advertisements

মার্কিন মহাকাশ সংস্থা নাসার বিজ্ঞানীরা সংবাদ সম্মেলন করে জানিয়েছেন, সূর্যের ২৫তম সোলার সাইকেল শুরু হয়ে গেছে। এখন শক্তিশালী সৌরঝড় হতে পারে। গতিবিধিও বেড়ে যেতে পারে।

বিজ্ঞানীরা জানাচ্ছেন, এটি একটি স্বাভাবিক প্রক্রিয়া, যখনই সূর্য ম্লান হয় তখন কয়েক মাস বা বছর পরে এটি হয়ে থাকে।গত বেশ কয়েক মাস ধরে সূর্য নিস্তেজ ছিল। আলোও ছিল ম্লান। কোনও রকম সৌরঝড় বা কোনও কিছু লক্ষ্যও করা যায়নি। তবে মনে করা হচ্ছে, নিকট ভবিষ্যতে সূর্যে উথাল পাথাল হতে পারে।

গতকাল বুধবার (১৬ সেপ্টেম্বর) নাসায় কর্মরত বিজ্ঞানী লিকা গুহঠাকুরতা জানিয়েছেন, সম্প্রতি একটি শক্তিশালী করোনিয়াল তরঙ্গ, অর্থাৎ একটি সৌর শিখা দেখা গেছে। একই সঙ্গে দেখা গেছে, একটি বড় কালো দাগ। যা জানান দিচ্ছে, সূর্য তার নতুন সোলার সাইকেলের কাজ শুরু করেছে।

নাসার আগে জার্মানির ম্যাক্স প্ল্যাঙ্ক ইনস্টিটিউট দাবি করেছিল, পৃথিবীতে সূর্যই একমাত্র শক্তির উৎস। তবে গত ৯ হাজার বছর ধরে এটি ধারাবাহিকভাবে দুর্বল হচ্ছে। এর উজ্জ্বলতা হ্রাস পাচ্ছে। বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন, আমাদের ছায়াপথের অন্যান্য তারার তুলনায় সূর্যের উজ্জ্বলতা ম্লান হয়ে যাচ্ছে। বৈজ্ঞানিকরা জানাচ্ছেন, গত ৯ হাজার বছরে এর উজ্জ্বলতা পাঁচ গুণ কমেছে।

ম্যাক্স প্ল্যাংক ইন্সটিটিউটের বিজ্ঞানী ডা. এলেকজান্ডার শাপিরো বলেন, মহাকাশে সূর্যের বেশি সক্রিয় তারা বা নক্ষত্র রয়েছে। সূর্যের সঙ্গে সূর্যের মতো আরও ২ হাজার ৫০০ তারার তুলনা করেই তারা এই সিদ্ধান্তে পৌঁছান। তাই বিজ্ঞানীরা বলেন, হ্রাস পাচ্ছে সূর্যের ঔজ্জ্বল্য।

তবে, মনে করা হয় সূর্যের বয়স ৪.৬ বিলিয়ন বছর। সে তুলনায়, ৯ হাজার বছর কিছুই না। কিন্তু বিজ্ঞানীদের দাবি, গত ৯ হাজার বছরে এর উজ্জ্বলতা পাঁচ গুণ কমেছে।

Translate »