Advertisements

এসব অনুষ্ঠানে কভিড-১৯, রোহিঙ্গা ইস্যু, জলবায়ু পরিবর্তন, প্রযুক্তিগত উন্নয়ন, শিশুস্বাস্থ্য, অভিবাসী শ্রমিক, লিঙ্গ বৈষম্য দূরীকরণ এবং শান্তিরক্ষার মতো বিষয়ে আলোকপাত করবেন প্রধানমন্ত্রী। 

আজ সোমবার (২১ সেপ্টেম্বর) পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন এক ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে একথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী আগামী ২৬ সেপ্টেম্বর সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে মূল বক্তব্য দেবেন। সেখানে তিনি রোহিঙ্গা বিষয়সহ অন্যান্য বিষয় নিয়ে আলোচনা করবেন। বক্তব্যে কভিড-১৯, রোহিঙ্গা, জলবায়ু পরিবর্তন, লিঙ্গবৈষম্য হ্রাস, অভিবাসী শ্রমিকদের অধিকার, টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রাসহ অন্যান্য বিষয় নিয়ে প্রধানমন্ত্রী বক্তব্য দেবেন বলে আশা করা হচ্ছে।

তিনি বলেন, আগামী ১ অক্টোবর পর্যন্ত মোট সাতটি অনুষ্ঠানে ঢাকা থেকে অংশ নেবেন তিনি। প্রধানমন্ত্রী কভিড-১৯, রোহিঙ্গা, জলবায়ু পরিবর্তন, লিঙ্গবৈষম্য হ্রাস, অভিবাসী শ্রমিকদের অধিকার, টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রাসহ অন্যান্য বিষয় নিয়ে কথা বলবেন। 

এ কে মোমেন বলেন, এবার অন্তত সাতটি অনুষ্ঠানে অংশ নেবেন প্রধানমন্ত্রী। এর মধ্যে অন্তত ছয়টিতে তিনি বক্তব্য রাখবেন। আজই ভোর তিনটায় (দিনগত) ৭৫তম জাতিসংঘ দিবস ও সাধারণ অধিবেশন উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে অংশ নেবেন তিনি। ২৩ তারিখও একটা ইভেন্ট আছে। ২৪ সেপ্টেম্বর আবহাওয়া ও জলবায়ু বিষয়ক এক উচ্চ পর্যায়ের বৈঠকে অংশ নেবেন। ২৬ সেপ্টেম্বর বাংলাদেশ সময় রাত ৮টায় সাধারণ অধিবেশনে বক্তব্য রাখবেন তিনি। ২৯ এবং ৩০ সেপ্টেম্বর উচ্চ পর্যায়ের আরও দুটি বৈঠকে অংশ নেবেন তিনি। আর ১ অক্টোবর বেইজিং উইমেনস বৈঠকে অংশ নেবেন প্রধানমন্ত্রী।

তিনি আরো বলেন, প্রতিবারের মতো এবারও জাতিসংঘের অধিবেশনে বাংলাদেশ রোহিঙ্গা সমস্যাটি তুলে ধরবে। বিশেষ করে রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে সংঘটিত অপরাধ বিষয়ে সাম্প্রতিক সময়ে আইসিজেতে চলমান মামলা এবং আইসিসিতে রোহিঙ্গা নির্যাতনে দায়ী ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে চলমান আইনি প্রক্রিয়ার কারণে এবারের অধিবেশনে রোহিঙ্গা সমস্যা আগের বছরগুলোর মতোই গুরুত্ব পাবে।

Translate »