Advertisements

 

বিশ্বের দ্রুততম বর্ধনশীল স্মার্টফোন ব্র্যান্ড রিয়েলমি সোমবার (২১ সেপ্টেম্বর) বাজারে এনেছে সি সেভেন্টিন। স্মার্টফোনটিতে রয়েছে ৯০ হার্টজের আল্ট্রা-স্মুথ ডিসপ্লে, মোস্ট পাওয়ারফুল ৬ জিবি র‍্যাম ও ১২৮ জিবি স্টোরেজের পাশাপাশি ৫ হাজার মিলিঅ্যাম্পিয়ার ব্যাটারি ও এআই কোয়াড ক্যামেরা।

বাংলাদেশে ফার্স্ট গ্লোবাল লঞ্চ হওয়া ট্রেক-ট্রেন্ডি স্মার্টফোনটি ১৫ হাজার ৯৯০ টাকা মূল্যে বাজারে এসেছে। ২২ সেপ্টেম্বর থেকে জনপ্রিয় ই-কমার্স সাইট দারাজে বিশেষ মূল্যে ১৪ হাজার ৯৯০ টাকায় এবং ২৪ সেপ্টেম্বর থেকে দেশের সব স্মার্টফোন স্টোরে পাওয়া যাচ্ছে রিয়েলমি সি সেভেন্টিন।

“ডেয়ার টু লিপ” স্পিরিটে উদ্বুদ্ধ সি সিরিজের অভিজ্ঞতা আরও সমুন্নত করতে তরুণ প্রজন্মের জন্য স্মার্টফোনটি হাজির হয়েছে রিয়েলমি। ৬.৫-ইঞ্চির আল্ট্রা সুপার ডিসপ্লে, যাতে পাওয়া যাবে ৯০ হার্টজের রিফ্রেশ রেট, ফলে প্রতিটি সোয়াইপ হবে সুপার স্মুথ। ৯০ হার্টজের সুপার স্মুথ ডিসপ্লে প্রচলিত ৬০ হার্টজের ডিসপ্লের তুলনায় ৫০ শতাংশ বেশি রিফ্রেশ রেট নিশ্চিত করে অনন্য ভিজ্যুয়াল এক্সপেরিয়েন্স প্রদান করবে। ৯০ শতাংশ স্ক্রীন-টু-বডি রেশিওর ডিসপ্লের চমৎকার উজ্জ্বলতায় বিনোদন বাড়বে আরও এক ধাপ।

রিয়েলমি বাংলাদেশের কান্ট্রি ম্যানেজার টিম শাও বলেন, “পূর্ববর্তী সময়গুলোতে বাংলাদেশের স্মার্টফোন মার্কেটে চমৎকার সাড়া পেয়ে রিয়েলমি সি সেভেন্টিনের গ্লোবাল লঞ্চ এ দেশের বাজার থেকেই শুরু করছি। আমরা সবসময়ই টেক-ট্রেন্ডি পণ্য নিয়ে কাজ করে আসছি এবং আমাদের বিশ্বাস ৯০ হার্টজের সুপার স্মুথ ডিসপ্লে, পাওয়ারফুল র‍্যাম, রম, ট্রেন্ডসেটিং ডিজাইন ও বিশাল ব্যাটারির সাথে এ ফোন ব্যবহারকারীর প্রযুক্তিগত চাহিদা পূরণ করে অনন্য স্মার্টফোন অভিজ্ঞতা দেবে।”

সি সিরিজের ফোনগুলো বরাবরই বড় ব্যাটারিতে দীর্ঘক্ষণ ব্যাক-আপ দেয়ার জন্য জনপ্রিয়। এ ধারা বজায় রাখতে রিয়েলমি সি সেভেন্টিনেও থাকছে ৫ হাজার মিলিঅ্যাম্পিয়ারের মেগা ব্যাটারি, যা দেবে ৩৪ দিনের স্ট্যান্ডবাই সুবিধা এবং ৩৫ ঘণ্টার বেশি কলিং এর সুবিধা। এর পাশাপাশি এর ১৮ ওয়াটের ফার্স্ট চার্জে মাত্র ৩০ মিনিটে ৩৩ শতাংশ চার্জ করা যাবে। উন্নততর ব্যাটারি লাইফ অপটিমাইজেশন এবং সুপার পাওয়ার সেভিং মোডে মাত্র ৫ শতাংশ ব্যাটারির ব্যবহারে ১ দশমিক ২ ঘণ্টা হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহার করা যাবে।

রিয়েলমি সি সেভেন্টিনে ব্যবহার করা হয়েছে বিশ্বের প্রথম ১১ ন্যানোমিটারের শক্তিশালী স্ন্যাপড্রাগন ৪৬০ অক্টা-কোর প্রসেসর। এর ক্রায়ো ২৪০ সিপিইউ এবং অ্যাড্রেনো ৬১০ জিপিইউ এর সাথে সর্বোচ্চ ১.৮ গিগাহার্টজ পর্যন্ত গতিতে কাজ করতে পারে।

রিয়েলমি সি সেভেন্টিনের এআই কোয়াড রিয়ার ক্যামেরায় ঝকঝকে ছবি তোলার জন্য আছে ১৩ মেগাপিক্সেলের এফ/২.২ এর বড় অ্যাপারচারের মূল ক্যামেরা। ১১৯ ডিগ্রি ওয়াইড-অ্যাঙ্গেল লেন্সে অনায়াসেই চমৎকার ল্যান্ডস্কেপ, স্থাপত্যশৈলী ও বন্ধুদের বড় গ্রুপের ছবি তোলা যাবে। ম্যাক্রো লেন্সে মাত্র চার সেন্টিমিটার দূরত্ব থেকে নতুন দৃষ্টিভঙ্গিতে ক্ষুদ্র এক জগতের দেখা মিলবে। সাদাকালো পোর্ট্রেট লেন্সের তোলা যাবে হাই-কোয়ালিটি পোর্টেট। সুপার নাইটস্কেপ মোডে লো লাইটেও সি সেভেন্টিনে উজ্জ্বল এবং ক্লিয়ার ছবি তোলা যাবে।

ক্যাটস আই ডিজাইনে অনুপ্রাণিত হয়ে রিয়েলমি সি সেভেন্টিন সি-সিরিজের অন্যান্য সব মডেল থেকে সম্পূর্ণ আলাদা। গাঢ় নীলে ভিন্ন ধাঁচের হাইলাইটে নেভি ব্লু এবং হালকা নীলের সাথে ফ্রস্টেড ইফেক্টে লেক গ্রিন–এ দুটি ভিন্ন রঙ ও শৈলীতে পাওয়া যাচ্ছে রিয়েলমি সি সেভেন্টিন। ৮.৫ মিলিমিটারের ফোনটির ওজন মাত্র ১৮৮ গ্রাম। এতে একই সময়ে দু’টি ন্যানো সিম কার্ড ব্যবহার করা যায় এবং এসডি কার্ডের ব্যবহারে সর্বোচ্চ ২৫৬ গিগাবাইট পর্যন্ত মেমরি বাড়ানো যাবে। নিরবচ্ছিন্ন বিনোদনের জন্যে এতে ব্যবহার করা হয়েছে ট্রেন্ডসেটিং রিয়েলমি ইউআই।

ই-কমার্সের বিস্তৃত প্রেক্ষাপটে দৃঢ় পারফরমেন্স এবং ট্রেন্ডি ডিজাইন সরবরাহকারী ডিভাইস হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করে ২০১৮ সালের মে মাসে রিয়েলমি প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। রিয়েলমির বিভিন্ন পণ্য প্রবর্তনের সাথে সাথে তাদের “পাওয়ার” এবং “স্টাইল”এর জন্য ব্যাপক স্বীকৃতি অর্জন করেছে। ভারতে রিয়েলমি দীপাবলির সময় দিনের দিনের মধ্যে ১০ লাখ মোবাইল ফোন বিক্রি রেকর্ড গড়েছিল।

রিয়েলমি দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার লাজাদার বিক্রির রেকর্ডও ভেঙে এই প্ল্যাটফর্মের মোবাইল ফোন বিভাগে ১ নম্বর ব্র্যান্ডে পরিণত হয়েছিল। চীন, ভারত, ইন্দোনেশিয়া, ভিয়েতনাম, থাইল্যান্ড, মালয়েশিয়া, পাকিস্তান, মিশর ইত্যাদির মতো খুব অল্প সময়ের মধ্যেই রিয়েলমি ২০টিরও বেশি দেশের বাজারে প্রবেশ করেছে। চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে রিয়েলমি বাংলাদেশের বাজারে প্রবেশ করেছে।

By Abraham

Translate »