Advertisements

শেষ পর্যন্ত নিজের হাতে গড়া গণফোরামকে ভাঙনের হাত থেকে রক্ষা করতে পারছেন না দলটির প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ড. কামাল হোসেন। গত কয়েক মাস দলটির কেন্দ্রীয় কমিটিতে বহিষ্কার-পাল্টা বহিষ্কারের ঘটনা ঘটে চলছিল। তারাই ধারাবাহিকতায় আগামী ২৬ সেপ্টেম্বর গণফোরামের বর্ধিত সভা আহ্বান করেছে দলটির ভেঙে দেওয়া কমিটির এবং বহিষ্কৃত নেতারা। আর সেই সভা থেকে গণফোরাম নামে আরেকটি দলের সূচনা হতে যাচ্ছে। এর নেতৃত্বে দেখা যাবে দলটির সাবেক নির্বাহী সভাপতি অ্যাডভোকেট সুব্রত চৌধুরী ও সাবেক সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা মহসিন মন্টুকে।

২৬ সেপ্টেম্বর সকাল ১০টায় জাতীয় প্রেসক্লাবে গণফোরামের বর্ধিত সভা ডেকেছেন সুব্রত চৌধুরী। এই বর্ধিত সভার সঙ্গে কোনও সংশ্লিষ্টতা না থাকার কথা উল্লেখ করে মঙ্গলবার (২২ সেপ্টেম্বর) প্রেস বিজ্ঞপ্তি পাঠান গণফোরামের বর্তমান আহ্বায়ক কমিটির সভাপতি কামাল হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক রেজা কিবরিয়া।

কামাল হোসেন  বলেন, ‘আমি তো করোনার কারণে দীর্ঘদিন ঘরবন্দি। গণফোরামের কোনও বর্ধিত সভা ডাকা হয়নি। আমি আপনার কাছেই প্রথম সভার কথা শুনেছি। এ বিষয়ে সুব্রত চৌধুরীও কিছু জানায়নি। আমার সঙ্গে তো তার কথা হয়, কিন্তু তিনি তো আমাকে বলেননি।’ তিনি আরও বলেন, আমি কোনও বর্ধিত সভার কথা জানিও না এবং কোনও সভায়ও যাচ্ছি না।

গণফোরামের সাবেক নির্বাহী সভাপতি সুব্রত চৌধুরী  বলেন, আমরা তো চলতি মাসের ৫ তারিখে ২৬ সেপ্টেম্বর বর্ধিত সভা করার কথা ঘোষণা করেছি। এই সভার কথা গণফোরামের সারা দেশের জেলা-উপজেলা সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে চিঠি দিয়ে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে। কামাল হোসেনকেও দাওয়াত দেওয়া হবে। তিনি না এলে সভায় উপস্থিত নেতাদের সঙ্গে আলোচনা করে পরবর্তী করণীয় ঠিক করা হবে।

সূত্র: বাংলা ট্রিবিউন

By Abraham

Translate »